সর্বশেষ সংবাদ: জাতীয় শিক্ষাক্রম অনুসরণ করছে ইবতেদায়ী মাদ্রাসা: শিক্ষামন্ত্রী রূপগঞ্জে ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় যুবককে কুপিয়ে জখম করেছে কিশোর গ্যাং সদস্যরা সাবেক প্রতিমন্ত্রী ডাঃ মুরাদ কানাডা-আমিরাতে ঢুকতে না পেরে ফিরে আসছেন ঢাকায় বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে ——- তারা‌বো পৌরসভার মেয়র হা‌সিনা গাজী সোনারগাওঁয়ের সাদিপুর ইউ,পিতে ৩ নং ওয়ার্ডের মেম্বার নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইল এলাকায় র‌্যাব-১১ এর অভিযানে ০৪ পরিবহন চাঁদাবাজ গ্রেফতার রূপগঞ্জে পুলিশ পরিদর্শকসহ ব্যবসায়ীকে হানজালা বাহিনীর হুমকি, ইটপাটকেল নিক্ষেপে দুই পুলিশ সদস্য আহত রূপগঞ্জে মন্ত্রীর পক্ষে ছাত্রলীগ নেতারদের বিরুদ্ধে আইসিটি আইনে মামলা বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর হলেন আহমদে জামাল ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহেই দেশে ভ্যাকসিন প্রয়োগ শুরু

সকল শিরোনাম

রাজনৈতিক সংঘাত বনাম জনসমাগমের রাজনীতি!! ব্রাজিল খেলায় সুনামি বইয়ে দিল : প্রতিপক্ষের বুকে কাঁপুনি শুরু বঙ্গবন্ধু টানেলের আংশিক খুলে দেওয়া হবে এ মাসেই ডিসেম্বরে ভারতের বিদ্যুৎ মিলবে বাংলাদেশে ১১ হাজার কর্মী ছাঁটাইয়ের ঘোষণা জাকারবার্গের মিয়ানমারে উপর নিষেধাজ্ঞা যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত হোন শর্ত ছাড়াই বাংলাদেশকে ৪৫০ কোটি ডলার ঋণ দিচ্ছে আইএমএফ সরকারি কর্মকর্তাদের বিদেশ ভ্রমণ স্থগিত কাতার বিশ্বকাপ : কন্টেইনারে রাতযাপনে গুনতে হবে ২১ হাজার টাকা ঋণের টাকায় দামি গাড়ি! পৃথিবীর তাপ রেকর্ড পরিমাণ বেড়েছে ১৫ নভেম্বর বিশ্বের জনসংখ্যা হবে ৮০০ কোটি আর্জেন্টিনা উগ্র ফুটবল সমর্থকগোষ্ঠী : বিশ্বকাপে ৬ হাজার আর্জেন্টাইন সমর্থক নিষিদ্ধ ২৫ কেজি সোনা নিলামে তুলবে বাংলাদেশ ব্যাংক খেলা যেন হয় শান্তিপূর্ণ ও নিরপেক্ষ ডিএসইর মানবসম্পদ নীতি নিয়ে বৈঠক ডেকেছে বিএসইসি ঋণ পাচ্ছে বাংলাদেশ যুদ্ধ হয়ে যাক একটা.. দীর্ঘদিন পর রাজনৈতিক সমাবেশে আসছেন প্রধানমন্ত্রী টাকা যেন একবারেই মূল্যহীন : ৫০ বছরে পণ্যমূল্য বেড়েছে ৮০ গুণ যৌন হয়রানি প্রতিকার কোথায়? সরকারের দমনপীড়নে গণজাগরণ দমানো যাবে না সংঘাত, সহিংসতা এবং সঙ্কটের রাজনীতি পাকিস্তানে বিএনপির সঙ্গে সম্পর্ক নেই হেফাজতের

এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

রাজনৈতিক সংঘাত বনাম জনসমাগমের রাজনীতি!! ব্রাজিল খেলায় সুনামি বইয়ে দিল : প্রতিপক্ষের বুকে কাঁপুনি শুরু ব্রাজিলের জাদুকরী খেলা দেখে অনেকে আর্জেন্টিনা ছাড়ছেন আপনার জীবন বদলে যাবেই… বঙ্গবন্ধু টানেলের আংশিক খুলে দেওয়া হবে এ মাসেই ডিসেম্বরে ভারতের বিদ্যুৎ মিলবে বাংলাদেশে যুদ্ধ না হলেও দেশে অর্থনৈতিক মন্দা আসত: জিএম কাদের ১১ হাজার কর্মী ছাঁটাইয়ের ঘোষণা জাকারবার্গের মিয়ানমারে উপর নিষেধাজ্ঞা সিনেটে বাইডেন এগিয়ে, ট্রাম্পের নিয়ন্ত্রণে হাউস যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত হোন শর্ত ছাড়াই বাংলাদেশকে ৪৫০ কোটি ডলার ঋণ দিচ্ছে আইএমএফ সরকারি কর্মকর্তাদের বিদেশ ভ্রমণ স্থগিত কাতার বিশ্বকাপ : কন্টেইনারে রাতযাপনে গুনতে হবে ২১ হাজার টাকা ঋণের টাকায় দামি গাড়ি!

পৃথিবীর তাপ রেকর্ড পরিমাণ বেড়েছে

| ২৫ কার্তিক ১৪২৯ | Wednesday, November 9, 2022

জলবায়ু পরিবর্তনে বৈশ্বিক উষ্ণতা বেড়েছে'জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে গত আট বছরে বৈশ্বিক উষ্ণতা রেকর্ড পরিমাণ বেড়েছে বলে রোববার জাতিসংঘ এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে। বিশ্ব আবহাওয়া সংস্থা (ডবিøউএমও) বলেছে, সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বৃদ্ধি, হিমবাহ গলে যাওয়া, মুষলধারে বৃষ্টি এবং তাপপ্রবাহ মারাত্মক বিপর্যয় সৃষ্টি করে; এগুলো দ্রæত গতিতে বৃদ্ধি পেয়েছে। জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস বলেছেন, যখন কপ ২৭ সম্মেলন চলছে তখন প্রতিবেদনে জলবায়ু পরিবর্তনের অন্ধকার চিত্র পাওয়া যাচ্ছে। মিশরে জড়ো হওয়া প্রায় ২০০টি দেশ তাপমাত্রা বৃদ্ধি ১.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে ধরে রাখার লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে। তবে বিজ্ঞানীরা বলছেন, এটি এখন সেই মাত্রায় ধরে রাখার মতো অবস্থায় নেই। অর্থাৎ ১৯ শতকের শেষের দিকের স্তরের (১.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস) উপরে ১.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসে বৈশ্বিক উষ্ণতা সীমাবদ্ধ করতে হবে এবং এ জন্য ২০৩০ সালের মধ্যে গ্রিনহাউস নির্গমন ৪৫ শতাংশ কমাতে হবে। প্রতিবেদনে বলা হয়, ১৯ শতকের শেষের দিক থেকে পৃথিবী ১ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াসের বেশি উষ্ণ হয়েছে। ডবিøউএমও প্রধান পেটেরি তালাস বলেছেন, ‘উষ্ণায়ন যত বেশি হবে, প্রভাব তত খারাপ হবে।’ এদিকে মিশরের শারম-আল-শেখে রোববার থেকে শুরু হয়েছে ২৭তম জলবায়ু সম্মেলন বা কনফারেন্স অব পার্টিজ-২৭ বা কপ-২৭। গ্রিন হাউস গ্যাস নিঃসরণ কমানোসহ জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব ঠেকাতে গুরুত্বপূর্ণ সব বিষয়ে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ ও বাস্তবায়নে এই সম্মেলন তাৎপর্যপূর্ণ।

বৈশ্বিক তাপমাত্রা বৃদ্ধি এক দশমিক পাঁচ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে রাখা, জীবাশ্ম জ্বালানি ব্যবহার থেকে সরে আসা, ঝুঁকিতে থাকা দেশগুলোর জন্য ক্ষতিপূরণের মতো ইস্যুতে গত বছর কপ-২৬ সম্মেলন ঘিরে ছিল অনেক প্রত্যাশা। তবে, দিন শেষে প্রত্যাশার চেয়ে ব্যর্থতার পাল্লা ছিল ভারী। এরই জেরে পরিবেশবাদী আন্দোলনকারী গ্রেটা থানবার্গ জলবায়ু সম্মেলনকে ফাঁপা প্রতিশ্রæতি হিসেবে উল্লেখ করেছিলেন।
চলতি বছর বিশ্বব্যাপী বৈশ্বিক উষ্ণতা আরও বেড়েছে। ইউরোপের দেশগুলো এ বছরের শুরু থেকেই ভয়াবহ দাবানল, দাবদাহের কবলে পড়ে। বিজ্ঞানীরা বলছেন, এখনও উল্লেখযোগ্য হারে গ্রিন হাউস গ্যাস নির্গমন হচ্ছে। এসব সমস্যা সমাধানে এবারের সম্মেলন কতটুকু সফল হবে তা নিয়ে শঙ্কা জানিয়েছেন সমাজকর্মী ও পরিবেশবিদরা।
তীব্র দাবদাহের কবলে পড়েছে ইউরোপ। উন্নত দেশ হওয়ায় সামাজিক ও আর্থিকভাবে হয়তো খুব বেশি ক্ষতি হয়নি তাদের। তবে আফ্রিকা, বাংলাদেশ কিংবা পাকিস্তানের মতো দেশে বন্যা বা দাবদাহ দেখা দিলে সেখানকার মানুষের জন্য তা ভয়ংকর দুর্দশার। সূত্র : সময়টিভি অনলাইন