সর্বশেষ সংবাদ: জাতীয় শিক্ষাক্রম অনুসরণ করছে ইবতেদায়ী মাদ্রাসা: শিক্ষামন্ত্রী রূপগঞ্জে ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় যুবককে কুপিয়ে জখম করেছে কিশোর গ্যাং সদস্যরা সাবেক প্রতিমন্ত্রী ডাঃ মুরাদ কানাডা-আমিরাতে ঢুকতে না পেরে ফিরে আসছেন ঢাকায় বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে ——- তারা‌বো পৌরসভার মেয়র হা‌সিনা গাজী সোনারগাওঁয়ের সাদিপুর ইউ,পিতে ৩ নং ওয়ার্ডের মেম্বার নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইল এলাকায় র‌্যাব-১১ এর অভিযানে ০৪ পরিবহন চাঁদাবাজ গ্রেফতার রূপগঞ্জে পুলিশ পরিদর্শকসহ ব্যবসায়ীকে হানজালা বাহিনীর হুমকি, ইটপাটকেল নিক্ষেপে দুই পুলিশ সদস্য আহত রূপগঞ্জে মন্ত্রীর পক্ষে ছাত্রলীগ নেতারদের বিরুদ্ধে আইসিটি আইনে মামলা বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর হলেন আহমদে জামাল ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহেই দেশে ভ্যাকসিন প্রয়োগ শুরু

সকল শিরোনাম

রাজনৈতিক সংঘাত বনাম জনসমাগমের রাজনীতি!! ব্রাজিল খেলায় সুনামি বইয়ে দিল : প্রতিপক্ষের বুকে কাঁপুনি শুরু বঙ্গবন্ধু টানেলের আংশিক খুলে দেওয়া হবে এ মাসেই ডিসেম্বরে ভারতের বিদ্যুৎ মিলবে বাংলাদেশে ১১ হাজার কর্মী ছাঁটাইয়ের ঘোষণা জাকারবার্গের মিয়ানমারে উপর নিষেধাজ্ঞা যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত হোন শর্ত ছাড়াই বাংলাদেশকে ৪৫০ কোটি ডলার ঋণ দিচ্ছে আইএমএফ সরকারি কর্মকর্তাদের বিদেশ ভ্রমণ স্থগিত কাতার বিশ্বকাপ : কন্টেইনারে রাতযাপনে গুনতে হবে ২১ হাজার টাকা ঋণের টাকায় দামি গাড়ি! পৃথিবীর তাপ রেকর্ড পরিমাণ বেড়েছে ১৫ নভেম্বর বিশ্বের জনসংখ্যা হবে ৮০০ কোটি আর্জেন্টিনা উগ্র ফুটবল সমর্থকগোষ্ঠী : বিশ্বকাপে ৬ হাজার আর্জেন্টাইন সমর্থক নিষিদ্ধ ২৫ কেজি সোনা নিলামে তুলবে বাংলাদেশ ব্যাংক খেলা যেন হয় শান্তিপূর্ণ ও নিরপেক্ষ ডিএসইর মানবসম্পদ নীতি নিয়ে বৈঠক ডেকেছে বিএসইসি ঋণ পাচ্ছে বাংলাদেশ যুদ্ধ হয়ে যাক একটা.. দীর্ঘদিন পর রাজনৈতিক সমাবেশে আসছেন প্রধানমন্ত্রী টাকা যেন একবারেই মূল্যহীন : ৫০ বছরে পণ্যমূল্য বেড়েছে ৮০ গুণ যৌন হয়রানি প্রতিকার কোথায়? সরকারের দমনপীড়নে গণজাগরণ দমানো যাবে না সংঘাত, সহিংসতা এবং সঙ্কটের রাজনীতি পাকিস্তানে বিএনপির সঙ্গে সম্পর্ক নেই হেফাজতের

এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

১১ হাজার কর্মী ছাঁটাইয়ের ঘোষণা জাকারবার্গের ২৫ কেজি সোনা নিলামে তুলবে বাংলাদেশ ব্যাংক সেই রোলস রয়েস খালাসে গুনতে হবে ৮৫ কোটি টাকা খাওয়ার মাঝে পানি পান স্বাস্থ্যের জন্য ভালো রাশিয়ার বিরুদ্ধে জাতিসংঘে ভোট দিলো বাংলাদেশ পোকামাকড় দূর করতে যে পাঁচটি গাছ উপকারী হঠাৎ করে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে বাংলাদেশের বৈদেশিক ঋণ পরিস্থিতি স্বাভাবিক ভারতে ফাইভজির যাত্রা শুরু বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর হলেন আহমদে জামাল বিনামূল্যে করোনার ভ্যাকসিন চান বিশ্বনেতারা শাকসবজি যেভাবে করোনামুক্ত রাখবেন আড়াই হাজার টাকা করে পাবে ৫০ লাখ পরিবার ১ কোটি লিটার ‘বিয়ার’ ড্রেনে ফেলে দিচ্ছে ফ্রান্স করোনা পরীক্ষায় ৩০ হাজার ‍কিট দিলো ভারত

পোকামাকড় দূর করতে যে পাঁচটি গাছ উপকারী

| ২৯ আশ্বিন ১৪২৯ | Friday, October 14, 2022

বাড়িতে ছোট থেকে বড় নানান বয়সের মানুষ থাকে। বাড়ির সবচেয়ে ছোট সদস্যটিকে হয়তো দেখা যায় ঘরের মেঝেতেই বসে খেলছে। আবার বাড়ির সবচেয়ে বড় যিনি থাকেন তিনি বারান্দায় চেয়ারে বসে বাইরের আবহাওয়া দেখতে বেশ পছন্দ করে থাকেন। দিনের বেশিরভাগ সময়ই তাদের ঘরে থাকতে হয়। অনেক সময় ঘরে পোকামাকড় দেখতে পাওয়া যায়। যা বাড়ির সদস্যদের জন্য ক্ষতিকর। এসব ক্ষতিকর পোকামাকড় থেকে বাড়ির সদস্যদের রক্ষা করতে ঘরে গাছ লাগাতে পারেন। কথায় আছে ‘গাছ মানুষের বন্ধু’। কিছু কিছু সময় গাছ তার প্রমাণও দিয়ে থাকে। গাছ মানুষের প্রকৃত বন্ধুই। ঘরের মধ্যে যেসব গাছ লাগালে পোকামাকড় দূর করা সম্ভব তার মধ্যে পাঁচটি গাছ সম্পর্কে জেনে নিন।

গাঁদা ফুলের গাছ
শীতকালে গাঁদা ফুলের গাছ দেখা যায় অনেক বাড়িতেই। শুধু সৌন্দর্যই নয় গাঁদা ফুল গাছের উপকারিতা আছে অনেক। এই গাছে কিছু উপাদান আছে যার কারণে অনেক ক্ষতিকর পোকামাকড় কাছ ঘেষতে পারে না। বাড়িতে মশা ও অন্যান্য পোকামাকড় দূর করতে অবশ্যই গাঁদা গাছ বসান।

পুদিনা পাতা
মশা দূর করতে পুদিনা পাতার জুড়ি নেই। পুদিনা পাতার ঘ্রাণে মশা অস্বস্তিবোধ করে। তাই পুদিনা পাতা রাখলে ঘরে মশার উপদ্রব কমানো যাবে।

তুলসি পাতা
তুলসি মূলত একটি ভেষজ গাছ। ‘তুলসি’ অর্থ যার তুলনা নেই। এটি সর্দি, কাশি সহ নানা অসুখের মহৌষধ। তবে বিশেষ করে কফের প্রাধান্যে যে সব রোগ সৃষ্টি হয় সে ক্ষেত্রে তুলসি বেশ ফলদায়ক। তুলসী গাছ ঘরে থাকলে তেলাপোকার যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পাবেন।

বাঁশ পাম গাছ
বাতাস থেকে ফর্মালডিহাইড পরিশোধন করার সবচেয়ে কার্যকরী গাছ হচ্ছে বাঁশ পাম গাছ। এটি দেখতে ছোট নারিকেল গাছের মত।পর্যাপ্ত সূর্যের আলোতে বেড়ে ওঠা এই গাছ ১০ থেকে ১২ ফুট লম্বা হয়ে থাকে। প্রচুর পরিমাণ বাতাস পরিশোধন করতে পারে। বাঁশ পাম গাছ বাতাস থেকে বেন্জেনে, ফর্মালডিহাইড, ট্রাইক্লোরোইথিলিন নামক বিষাক্ত দূষণ মুক্ত করে। আকর্ষণীয় এ বাঁশ ৮ দশমিক ৪ স্কোর নিয়ে নাসার বাতাস বিশুদ্ধ করা উদ্ভিদের শীর্ষ তালিকায় রয়েছে।আসবাবপত্রের পাশে ছায়া যুক্ত জায়গায় রেখে দিন। আসবাবপত্র থেকে নির্গত দূষণ শুষে নিবে। খুব বেশি পানি দিলে শিকড় পচে যেতে পারে। এছাড়াও পানি যেন জমে না থাকে সেদিকে খেয়াল রাখবেন।

স্নেক প্লান্ট
নাসার গবেষণায় এই ‘স্নেক প্লান্ট’ বাতাস পরিষ্কার করার জন্য অন্যতম সেরা একটি গাছ। এই গাছ ঘরের ভেতরের বাতাস থেকে প্রচুর পরিমাণ অ্যামোনিয়া, বেন্জেনে, ফর্মালডিহাইড, ট্রাইক্লোরোইথিলিন, জাইলিন দূর করে থাকে। জনপ্রিয় এই গাছটি অল্প খরচেই ঘরের টবে লাগানো যায়।

( ---অনন্যা )