সর্বশেষ সংবাদ: জাতীয় শিক্ষাক্রম অনুসরণ করছে ইবতেদায়ী মাদ্রাসা: শিক্ষামন্ত্রী রূপগঞ্জে ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় যুবককে কুপিয়ে জখম করেছে কিশোর গ্যাং সদস্যরা সাবেক প্রতিমন্ত্রী ডাঃ মুরাদ কানাডা-আমিরাতে ঢুকতে না পেরে ফিরে আসছেন ঢাকায় বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে ——- তারা‌বো পৌরসভার মেয়র হা‌সিনা গাজী সোনারগাওঁয়ের সাদিপুর ইউ,পিতে ৩ নং ওয়ার্ডের মেম্বার নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইল এলাকায় র‌্যাব-১১ এর অভিযানে ০৪ পরিবহন চাঁদাবাজ গ্রেফতার রূপগঞ্জে পুলিশ পরিদর্শকসহ ব্যবসায়ীকে হানজালা বাহিনীর হুমকি, ইটপাটকেল নিক্ষেপে দুই পুলিশ সদস্য আহত রূপগঞ্জে মন্ত্রীর পক্ষে ছাত্রলীগ নেতারদের বিরুদ্ধে আইসিটি আইনে মামলা বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর হলেন আহমদে জামাল ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহেই দেশে ভ্যাকসিন প্রয়োগ শুরু

সকল শিরোনাম

জ্ঞানপাপীরা পকেট ভরে : দেশীয় শিক্ষা রসাতলে বাণিজ্যমেলার মেলার বাহিরে ইজারাবিহীন হোটেলের ছড়াছড়ি  : মেলার প্রবেশ সড়ক ঢাকা বাইপাসে ১৭ কিলোমিটার যানজট ;  ভেতরে ক্রেতাশুন্য প্যাভিলিয়ন সুশাসন গণমাধ্যম এবং কিছু কথা রাজনৈতিক সংঘাত বনাম জনসমাগমের রাজনীতি!! ব্রাজিল খেলায় সুনামি বইয়ে দিল : প্রতিপক্ষের বুকে কাঁপুনি শুরু বঙ্গবন্ধু টানেলের আংশিক খুলে দেওয়া হবে এ মাসেই ডিসেম্বরে ভারতের বিদ্যুৎ মিলবে বাংলাদেশে ১১ হাজার কর্মী ছাঁটাইয়ের ঘোষণা জাকারবার্গের মিয়ানমারে উপর নিষেধাজ্ঞা যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত হোন শর্ত ছাড়াই বাংলাদেশকে ৪৫০ কোটি ডলার ঋণ দিচ্ছে আইএমএফ সরকারি কর্মকর্তাদের বিদেশ ভ্রমণ স্থগিত কাতার বিশ্বকাপ : কন্টেইনারে রাতযাপনে গুনতে হবে ২১ হাজার টাকা ঋণের টাকায় দামি গাড়ি! পৃথিবীর তাপ রেকর্ড পরিমাণ বেড়েছে ১৫ নভেম্বর বিশ্বের জনসংখ্যা হবে ৮০০ কোটি আর্জেন্টিনা উগ্র ফুটবল সমর্থকগোষ্ঠী : বিশ্বকাপে ৬ হাজার আর্জেন্টাইন সমর্থক নিষিদ্ধ ২৫ কেজি সোনা নিলামে তুলবে বাংলাদেশ ব্যাংক খেলা যেন হয় শান্তিপূর্ণ ও নিরপেক্ষ ডিএসইর মানবসম্পদ নীতি নিয়ে বৈঠক ডেকেছে বিএসইসি ঋণ পাচ্ছে বাংলাদেশ যুদ্ধ হয়ে যাক একটা.. দীর্ঘদিন পর রাজনৈতিক সমাবেশে আসছেন প্রধানমন্ত্রী টাকা যেন একবারেই মূল্যহীন : ৫০ বছরে পণ্যমূল্য বেড়েছে ৮০ গুণ যৌন হয়রানি প্রতিকার কোথায়?

এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

১১ হাজার কর্মী ছাঁটাইয়ের ঘোষণা জাকারবার্গের ২৫ কেজি সোনা নিলামে তুলবে বাংলাদেশ ব্যাংক সেই রোলস রয়েস খালাসে গুনতে হবে ৮৫ কোটি টাকা খাওয়ার মাঝে পানি পান স্বাস্থ্যের জন্য ভালো রাশিয়ার বিরুদ্ধে জাতিসংঘে ভোট দিলো বাংলাদেশ পোকামাকড় দূর করতে যে পাঁচটি গাছ উপকারী হঠাৎ করে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে বাংলাদেশের বৈদেশিক ঋণ পরিস্থিতি স্বাভাবিক ভারতে ফাইভজির যাত্রা শুরু বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর হলেন আহমদে জামাল বিনামূল্যে করোনার ভ্যাকসিন চান বিশ্বনেতারা শাকসবজি যেভাবে করোনামুক্ত রাখবেন আড়াই হাজার টাকা করে পাবে ৫০ লাখ পরিবার ১ কোটি লিটার ‘বিয়ার’ ড্রেনে ফেলে দিচ্ছে ফ্রান্স করোনা পরীক্ষায় ৩০ হাজার ‍কিট দিলো ভারত

বাংলাদেশের বৈদেশিক ঋণ পরিস্থিতি স্বাভাবিক

| ২৮ আশ্বিন ১৪২৯ | Thursday, October 13, 2022

---বাংলাদেশের বৈদেশিক ঋণ পরিস্থিতি স্বাভাবিক। সরকারের সব বৈদেশিক ঋণই ঝুঁকিমুক্ত। তবে সরকারের বৈদেশিক মুদ্রার সার্বিক আয়-ব্যয়ের ঘাটতি রয়েছে। এ ঘাটতি বেড়ে এখন ঝুঁকির সৃষ্টি করেছে। এর প্রভাবে মূল্যস্ফীতির হারও বেড়ে যাচ্ছে। তবে আশার কথা, আগামী অর্থবছর থেকে এ ঘাটতি কমে আসবে।
বুধবার রাতে প্রকাশিত আন্তর্জাতিক অর্থ তহবিলের (আইএমএফ) ‘আার্র্থিক খাত তদারকি : ক্ষতিগ্রস্তদের স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসতে সহায়তা করা’ শীর্ষক প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।
প্রতিবেদনে বলা হয়, করোনার প্রভাব ও রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে বিশ্বব্যাপী পণ্যের দাম বেড়ে গেছে। জ্বালানির দাম বাড়ায় বেড়েছে পণ্য পরিবহণ ব্যয়ও। এতে উন্নত অর্থনীতির দেশগুলোর পাশাপাশি স্বল্প আয়ের দেশগুলোতেও মূল্যস্ফীতির হার বেড়ে যায়। একই সঙ্গে মানুষের জীবনযাত্রায় সহায়তা করতে সরকারি খাতের ব্যয় বাড়াতে হয়েছে।
এছাড়া পণ্য আমদানিতেও ব্যয় বেশি হচ্ছে। অন্যদিকে সরকারের আয়ের অন্যতম খাত রাজস্ব কমে গেছে। এসব মিলে সরকার ঘাটতিতে পড়েছে। এ ঘাটতি দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশের তুলনামূলকভাবে কম। তবে শ্রীলংকা, পাকিস্তান, আফগানিস্তানের বেশি। ঘাটতির কারণে একদিকে সরকারের আর্থিক ব্যবস্থাপনা ঝুঁকিতে আছে, অন্যদিকে সরকার মানুষের চাহিদা অনুযায়ী ব্যয় করতে পারছে না। এতে মানুষের জীবনযাত্রার মান কমে যাচ্ছে। প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০২০-২১ অর্থবছরে সরকারি সার্বিক স্থিতিপত্রে ঘাটতি ছিল মোট জিডিপির ৩ দশমিক ৬ শতাংশ।
গত অর্থবছরে এ ঘাটতি বেড়ে দাঁড়িয়েছে জিডিপির ৫ দশমিক ১ শতাংশ। চলতি অর্থবছরে এ ঘাটতি বেড়ে সাড়ে ৫ শতাংশ হতে পারে। বাংলাদেশে এটিই সর্বোচ্চ ঘাটতি। আগামী অর্থবছর থেকে ঘাটতি কমে আসবে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। আগামী অর্থবছরে এ ঘাটতি হবে ৫ দশমিক ৩ শতাংশ। এরপর থেকে ঘাটতি আরও কমবে। ২০২৬-২৭ অর্থবছরে ঘাটতি কমে দাঁড়াবে জিডিপির ৫ শতাংশ।জিডিপির হিসাবে ঘাটতি কমলেও এর আকার বাড়ার কারণে ঘাটতির পরিমাণও বেড়ে যাবে। প্রতিবেদনে বলা হয়, বাংলাদেশে মাথাপিছু সরকারি খাতের ব্যয় কম। কিন্তু সার্কের অন্যান্য দেশগুলোতে এ ব্যয় বেশি। কর জিডিপি অনুপাতেও বাংলাদেশ বেশ পিছিয়ে। কিন্তু দক্ষিণ এশিয়ার অন্য দেশগুলো এ খাতে এগিয়ে রয়েছে। বৈদেশিক মুদ্রার সার্বিক চ্যালেঞ্জে ঘাটতি থাকায় বাংলাদেশের মূল্যস্ফীতির হার বাড়ছে। অনেক দেশেই এ খাতে ঘাটতি রয়েছে। যে কারণে স্বল্পোন্নত দেশগুলোর বৈদেশিক মুদ্রা ব্যবস্থাপনায় অস্থিরতা সৃষ্টি হচ্ছে।