সর্বশেষ সংবাদ: রূপগঞ্জে পানি দিবস উপলক্ষ্যে আলোচনাসভা ও র‌্যালি অনুষ্ঠিত রূপগঞ্জে ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় যুবককে কুপিয়ে জখম করেছে কিশোর গ্যাং সদস্যরা সাবেক প্রতিমন্ত্রী ডাঃ মুরাদ কানাডা-আমিরাতে ঢুকতে না পেরে ফিরে আসছেন ঢাকায় বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে ——- তারা‌বো পৌরসভার মেয়র হা‌সিনা গাজী সোনারগাওঁয়ের সাদিপুর ইউ,পিতে ৩ নং ওয়ার্ডের মেম্বার নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইল এলাকায় র‌্যাব-১১ এর অভিযানে ০৪ পরিবহন চাঁদাবাজ গ্রেফতার রূপগঞ্জে পুলিশ পরিদর্শকসহ ব্যবসায়ীকে হানজালা বাহিনীর হুমকি, ইটপাটকেল নিক্ষেপে দুই পুলিশ সদস্য আহত রূপগঞ্জে মন্ত্রীর পক্ষে ছাত্রলীগ নেতারদের বিরুদ্ধে আইসিটি আইনে মামলা বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর হলেন আহমদে জামাল ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহেই দেশে ভ্যাকসিন প্রয়োগ শুরু

সকল শিরোনাম

রূপগঞ্জে পানি দিবস উপলক্ষ্যে আলোচনাসভা ও র‌্যালি অনুষ্ঠিত মাদক,সন্ত্রাস ও ইভটিজিং নির্মূলে খেলাধূলার ভূমিকা অপরিসীম- কাউন্সিলর…মাহমুদুল হাসান পলিন রূপগঞ্জে ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় যুবককে কুপিয়ে জখম করেছে কিশোর গ্যাং সদস্যরা সাবেক প্রতিমন্ত্রী ডাঃ মুরাদ কানাডা-আমিরাতে ঢুকতে না পেরে ফিরে আসছেন ঢাকায় বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে ——- তারা‌বো পৌরসভার মেয়র হা‌সিনা গাজী সোনারগাওঁয়ের সাদিপুর ইউ,পিতে ৩ নং ওয়ার্ডের মেম্বার নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইল এলাকায় র‌্যাব-১১ এর অভিযানে ০৪ পরিবহন চাঁদাবাজ গ্রেফতার রূপগঞ্জে পুলিশ পরিদর্শকসহ ব্যবসায়ীকে হানজালা বাহিনীর হুমকি, ইটপাটকেল নিক্ষেপে দুই পুলিশ সদস্য আহত রূপগঞ্জে মন্ত্রীর পক্ষে ছাত্রলীগ নেতারদের বিরুদ্ধে আইসিটি আইনে মামলা বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর হলেন আহমদে জামাল ঢাকায় বিয়ে উৎসব, অংশ নেবেন কারা? ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহেই দেশে ভ্যাকসিন প্রয়োগ শুরু গোটা বিশ্বই ধ্বংস হবে মশা মারার ওষুধ কতটা কার্যকর? সশস্ত্র বিক্ষোভের শঙ্কায় যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে সতর্কতা বিটিএমসিতে অনিয়ম ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে দল ঘোষণা আমাকে বিয়ে করবে? শ্রীলেখা ক্রেডিট কার্ডের সর্বোচ্চ সুদ ২০ শতাংশ নির্ধারণ ১১৬৮ নমুনায় ৮৮ আক্রান্ত করোনা কেড়ে নিল আরও ২১ প্রাণ বার্সেলোনার সভাপতি নির্বাচন স্থগিত ভোটে সক্রিয় ছিল না বিএনপি টাকা যাঁর, টিকা তাঁর এমন যেন না হয়… ওবায়দুল কাদেরের ভাই কাদের মির্জা জয়ী

হায় আমাদের রাষ্ট্র

| ২২ বৈশাখ ১৪২৭ | Tuesday, May 5, 2020

৫৪ দিন ব্যাপক নির্যাতনের শিকার একজন সাংবাদিক। শারীরিক মানসিক ভাবে বিপর্যস্থ।নিষ্প্রাণ, ফ্যাল ফ্যাল করে তাকিয়ে থাকে,চোখে মুখে আতঙ্কের ছাপ।অপহরণকারীরা তাঁর হাত পা চোখ মুখ বেঁধে রাখতো সব সময়। কি দুঃস্বপ্ন কি ভয়ংকর সময় কাটাতে হয়েছে! অপহরণকারীরা যখন দয়াবশত হয়ে হাতের বাঁধন খুলে দিলো তখন রাষ্ট্র অতি উৎসাহে পিঠমোড়া করে হাতকড়া পরিয়ে সশস্ত্র পাহারায় আদালতে তুলে কারাগারে পাঠিয়ে দিলো।

এসব উপনিবেশিক গণবিরোধী রাষ্ট্রের সংরক্ষিত স্মৃতিচিহ্ন।মুক্তিযুদ্ধের রাষ্ট্রের বা প্রজাতন্ত্রের দৃষ্টিভঙ্গি নয়।নাগরিকের সাথে ন্যায় ও সম্মানজনক সম্পর্কের চুক্তি রাষ্ট্র ভয়ংকর ভাবে লঙ্ঘন করে যাচ্ছে।

অপহরণের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জানার পরও নিজ রাষ্ট্রে ফিরে আসা নাগরিকের বিরুদ্ধে ভারত থেকে অনুপ্রবেশকারী হিসাবে মামলা করা হয়েছে। ৫৪ দিনের নির্যাতনে স্মৃতি শক্তি বিপন্ন মৃত্যুপথযাত্রী নাগরিকের মানসিক সুরক্ষার বিন্দুমাত্র বিবেচনা না করেই কয়েকবার জিজ্ঞাসাবাদ করেছে।শেষে ৫৪ধারায় গ্রেফতার করে রাষ্ট্র তার সাংবিধানিক দায়িত্ব পালন করেছে।
নাগরিক অপহরণ গুম এটা রাষ্ট্রের দায় না হয়ে নাগরিক দায় হিসাবে চিহ্নিত করা হচ্ছে। যাকে জোর করে সীমান্তের ওপারে নিয়ে গিয়ে এবং সীমান্তের মাঠে ছেড়ে দিলে সে নাগরিক কি নিজ দেশে না ফিরে ভারতে প্রবেশ করলে কি অনুপ্রবেশকারী
হতোনা?
যে নাগরিক ভিন্ন দেশে অনুপ্রবেশকারী সে নাগরিক নিজ দেশে অনুপ্রবেশকারী হয় কি করে?
রাষ্ট্রের নৈতিকতা ব্যতিত রাষ্ট্র ধ্বংস হয়ে যায় নাগরিকদের অস্তিত্ব মূল্যহীন হয়ে পড়ে।
সাম্য মানবিক মর্যাদা সামাজিক সুবিচারের বাংলাদেশে একজন নাগরিককে পিঠমোড়া করে হাতকড়া পরানোর মাধ্যমে প্রমাণ হয় রাষ্ট্রের নৈতিক অবক্ষয় কতো প্রকট, নৈরাজ্যে নিপতিত হওয়ার বিপদ এবং রাষ্ট্রের সভ্যতার স্তরের নিম্নে নেমে যাওয়া।
১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের পর এক কোটি নাগরিক দেশে ফিরে এসেছেন পাসপোর্টবিহীন।আজ যদি কেউ প্রশ্ন করে তাদের বৈধতা নিয়ে সে রাষ্ট্র অস্তিত্ব বিলীন হবে। স্বাধীন দেশের নাগরিককে জোর করে অন্যদেশে নিয়ে গেলে সে কোথায় ফিরবে তার জবাব রাষ্ট্রকেই দিতে হবে।
ভারতের মোতিলাল নেহেরু বলেছিলেন ” আমাদের মৌলিক অধিকারগুলিকে এমন পদ্ধতিতে অনুমোদন দিতে হবে যেটা কোনো পরিস্থিতিতেই তাদের প্রত্যাহারকে অনুমোদন দিবেনা।” কিন্তু জাতি হিসাবে আমাদের দুর্ভাগ্য সব মৌলিক অধিকার সংবিধান দ্বারা সুরক্ষিত হওয়ার পরও রাষ্ট্র তা প্রত্যাহার করে নিচ্ছে। এসবের জন্য একদিন জাতিকে অবশ্যই মাত্রাতিরিক্ত মূল্য দিতে হবে।

গীতিকবি