সকল শিরোনাম

সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইল এলাকায় র‌্যাব-১১ এর অভিযানে ০৪ পরিবহন চাঁদাবাজ গ্রেফতার রূপগঞ্জে পুলিশ পরিদর্শকসহ ব্যবসায়ীকে হানজালা বাহিনীর হুমকি, ইটপাটকেল নিক্ষেপে দুই পুলিশ সদস্য আহত রূপগঞ্জে মন্ত্রীর পক্ষে ছাত্রলীগ নেতারদের বিরুদ্ধে আইসিটি আইনে মামলা বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর হলেন আহমদে জামাল ঢাকায় বিয়ে উৎসব, অংশ নেবেন কারা? ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহেই দেশে ভ্যাকসিন প্রয়োগ শুরু গোটা বিশ্বই ধ্বংস হবে মশা মারার ওষুধ কতটা কার্যকর? সশস্ত্র বিক্ষোভের শঙ্কায় যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে সতর্কতা বিটিএমসিতে অনিয়ম ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে দল ঘোষণা আমাকে বিয়ে করবে? শ্রীলেখা ক্রেডিট কার্ডের সর্বোচ্চ সুদ ২০ শতাংশ নির্ধারণ ১১৬৮ নমুনায় ৮৮ আক্রান্ত করোনা কেড়ে নিল আরও ২১ প্রাণ বার্সেলোনার সভাপতি নির্বাচন স্থগিত ভোটে সক্রিয় ছিল না বিএনপি টাকা যাঁর, টিকা তাঁর এমন যেন না হয়… ওবায়দুল কাদেরের ভাই কাদের মির্জা জয়ী মানুষের দারিদ্র্যের অন্যতম কারণ উপার্জনে সুযোগের সীমাবদ্ধতা আমদানি বৃদ্ধিতে অর্থনীতিতে স্বস্তির ইঙ্গিত তৈরি পোশাকের ক্রেতাদের এগিয়ে আসার আহ্বান বাণিজ্যমন্ত্রীর স্বামীর প্ররোচনায় স্ত্রীর আত্মহত্যা করোনা ভ্যাকসিন জানুয়ারিতেই পাব ॥ স্বাস্থ্যমন্ত্রী হোটেলে আটকে রেখে তরুণীকে ২ বন্ধুর পালাক্রমে ধর্ষণ

সার নিয়ে অবৈধ বাণিজ্য

| ২ মাঘ ১৪২২ | Friday, January 15, 2016

 

---এক সময়ের ‘তলাবিহীন ঝুড়ি’ বাংলাদেশ আজ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। নিজের দেশের চাহিদা মিটিয়ে বিদেশেও রপ্তানি হচ্ছে বাংলাদেশের খাদ্য। শুধু খাদ্যশস্য নয়, কৃষি উত্পাদনে বাংলাদেশের সাফল্য অসামান্য। দেশের কৃষি উত্পাদনে কৃষকের যেমন অবদান রয়েছে, তেমনি সরকারও কৃষিতে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনে ব্যাপক কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। কৃষিতে ব্যবহূত সার, বীজ, সেচের পানি সুলভ ও সহজলভ্য করতে সরকারের পক্ষ থেকে ভর্তুকির ব্যবস্থা করা হয়েছে। সঠিক সময়ে সেচ দিতে বিদ্যুৎ ও জ্বালানিতে ভর্তুকি দেওয়া হচ্ছে। মাঠের ফসলে সার দিয়েও ভর্তুকি দিচ্ছে সরকার। দেশে উত্পাদিত সার পাঁচ হাজার ৪০০ ডিলারের মাধ্যমে কম দামে কৃষকের কাছে পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। কিন্তু বাস্তবতা একেবারেই ভিন্ন। ভর্তুকির সার নিয়ে একটি চিহ্নিত সিন্ডিকেট কিভাবে ব্যবসা করছে তার বাস্তব চিত্র বেরিয়ে এসেছে কালের কণ্ঠ’র অনুসন্ধানী প্রতিবেদনে। চট্টগ্রামের টিএসপি সার কমপ্লেক্সের ডিএপি সার কারখানার কিছু অসাধু কর্মকর্তার সহযোগিতায় মাঝিরহাটের দুটি ব্যবসায়ী সিন্ডিকেট এই অবৈধ বাণিজ্য করে আসছে।

সরকার প্রতি কেজি টিএসপি ও ডিএপি সারে ১৮ টাকা ভর্তুকি দেয়। নিয়ম অনুযায়ী সরকারের ভর্তুকির সার অনুমোদিত ব্যবসায়ীদের কাছে সরাসরি বিক্রি করার কথা। ডিলাররা বরাদ্দপত্র অনুযায়ী সার তুলে নিজেদের এলাকায় বিক্রি করবেন—এটাই নিয়ম। কিন্তু বাস্তবে তা হচ্ছে না। সার ডিলাররা তাঁদের বরাদ্দপত্র অবৈধ সিন্ডিকেটের কাছে বিক্রি করতে বাধ্য হন। কালের কণ্ঠে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, দুই সিন্ডিকেটের প্রথম সিন্ডিকেট বরাদ্দপত্র কিনে নিয়ে বিক্রি করে দেয় দ্বিতীয় সিন্ডিকেটের কাছে। এই দ্বিতীয় সিন্ডিকেটের কেউই সার ব্যবসায়ী নন। পরিবহন ব্যবসায়ী এই সিন্ডিকেট বরাদ্দপত্র বিক্রি করে ব্যবসায়ীদের কাছে। তিন হাত ঘুরে সার যায় ব্যবসায়ীদের কাছে। এর ফলে এলাকার কৃষককে বাধ্য হয়ে বেশি দামে সার কিনতে হয়। সরকারের ভর্তুকি দেওয়ার উদ্দেশ্য ব্যাহত হচ্ছে এভাবেই। সারের চালান থেকে পুলিশকেও উেকাচ দিতে হয়। আবার সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে অভিযোগ করলে হিতে বিপরীত ঘটে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে লিখিত অভিযোগ করায় এক সার ব্যবসায়ীকে হত্যার হুমকি দেওয়ার খবরও এসেছে কালের কণ্ঠে। নিরাপত্তা চেয়ে থানায় জিডি করেছেন তিনি।

কৃষি ও কৃষকের উন্নয়নের জন্যই সরকারের ভর্তুকি নীতি। অসাধু সিন্ডিকেট সরকারের এই উদ্দেশ্য ব্যাহত করছে। সারের ভর্তুকির সুফল পাচ্ছে না কৃষক। বাড়ছে উত্পাদন খরচ। কাজেই এই সিন্ডিকেট ও অসাধু কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে। আমরা আশা করব, সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।