সকল শিরোনাম

৥ সড়ক দুর্ঘটনা : মায়া কান্নায় কি লাভ? ডেমরায় ট্রাফিকের ঝটিকা অভিযান ও অপরূত কিশোরী উদ্ধার এমপি হতে শেষ চেষ্টায় মনোনয়ন প্রত্যাশীরা যারাই ক্ষমতায় আসে তারাই ক্ষমতার অপপ্রয়োগ করে: ড. কামাল রাজধানীর জলাবদ্ধতা নিরসনে ৫টি খাল খনন করবে ওয়াসা যৌন হয়রানি প্রতিরোধে খসড়া আইনের প্রস্তাব সিসি ক্যামেরার আওতায় রামপুরা ট্রাফিক জোন ঢাকা-৫ আসনে বিএনপি-আ’লীগে একাধিক প্রার্থী, সুবিধাজন অবস্থানে জাপা ফখরুলের বক্তব্যের ব্যাখ্যা দিলেন রিজভী কালবৈশাখীর কারণে রূপালী ব্যা‍ংকের লিখিত পরীক্ষা বাতিল খালেদাকে জেলে রেখে নির্বাচনের কথা ভাবতে পারে না বিএনপি আগামী নির্বাচনে অংশ গ্রহন না করলে বিএনপি অস্থিত্ব সংকটে পড়বে খালেদা জিয়াকে বাদ দিয়ে জাতীয় নির্বাচন গ্রহণযোগ্য হতে পারে না নারী ও শিশু নির্যাতন কমছে না কেন? ১৫ ও ১৬ এপ্রিল ঢাকায় বিপিও সামিট উন্নয়নে সমাজের সর্বস্তরের মানুষকে অন্তর্ভুক্ত করতে হবে : মেনন সরকারের পক্ষ থেকে বিভিন্ন আশ্বাসের পরও চালের দাম কমছে না অস্বস্তিতে ক্রেতারা স্বাধীনতার ইতিহাস নতুন প্রজন্মের মাঝে জাগ্রত করতে মাতুয়াইলে আলোচনা সভা উন্নয়নের নামে নদী খাল ভরাট করা যাবে না: প্রধানমন্ত্রী এখনও ৩৫ হাজার কোটি টাকা ফেরৎ দেয়নি পাকিস্তান! উদ্বেগজনক হারে বাড়ছে আত্মহত্যা আবারো বাড়ছে গ্যাসের দাম মুচলেকা দিলেই সময় পাবে বিজিএমইএ ৪টি প্রতিষ্ঠানকে পুরস্কৃত করবেন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার বিকল্পে জোবাইদা রহমান, আ.লীগেও ভাগ বসাতে তৎপর


এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

৥ সড়ক দুর্ঘটনা : মায়া কান্নায় কি লাভ? এমপি হতে শেষ চেষ্টায় মনোনয়ন প্রত্যাশীরা যারাই ক্ষমতায় আসে তারাই ক্ষমতার অপপ্রয়োগ করে: ড. কামাল যৌন হয়রানি প্রতিরোধে খসড়া আইনের প্রস্তাব খালেদাকে জেলে রেখে নির্বাচনের কথা ভাবতে পারে না বিএনপি খালেদা জিয়াকে বাদ দিয়ে জাতীয় নির্বাচন গ্রহণযোগ্য হতে পারে না উন্নয়নে সমাজের সর্বস্তরের মানুষকে অন্তর্ভুক্ত করতে হবে : মেনন উদ্বেগজনক হারে বাড়ছে আত্মহত্যা আবারো বাড়ছে গ্যাসের দাম ৪টি প্রতিষ্ঠানকে পুরস্কৃত করবেন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার বিকল্পে জোবাইদা রহমান, আ.লীগেও ভাগ বসাতে তৎপর বিভিন্ন কলাকৌশলে বেগম জিয়ার মুক্তিকে বিলম্বিত করা হচ্ছে : ফখরুল মুক্তিযোদ্ধা ভাস্কর ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী আর নেই আন্তর্জাতিক কোনো আইন মানছে না মিয়ানমার, সতর্ক বিজিবি

আবারো বাড়ছে গ্যাসের দাম

জাতীয় সংবাদ, সকল শিরোনাম | ১৩ চৈত্র ১৪২৪ | Tuesday, March 27, 2018

নিউজ-বাংলাদেশ, ঢাকা: ফের ১ বছরের মাথায় বৃদ্ধি পেয়েছে গ্যাসের দাম। গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে সর্বশেষ গ্যাসের দাম বৃদ্ধির পর এক বছরের মাথায় ফের নিত্যদিনের জ্বালানি পণ্যটির দাম বৃদ্ধি পেলো। শুধুমাত্র আবাসিক ছাড়া সব খাতে দাম বাড়ানোর প্রস্তাব এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনে পাঠিয়েছে গ্যাস বিতরণ প্রতিষ্ঠানগুলো। যেখানে খাতভেদে ৪ গুণ পর্যন্ত দাম বাড়ানোর আবেদন করা হয়েছে।

জ্বালানি সংকট কাটাতে এপ্রিলে শুরু হচ্ছে দৈনিক ৫০ কোটি ঘনফুট তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস বা এলএনজি আমদানি। আর উচ্চমূল্যের এ জ্বালানি আমদানির ব্যয় সামলাতে শুরু হয়েছে আবারো গ্যাসের দাম বাড়ানোর আনুষ্ঠানিক প্রক্রিয়া।

বিশেষজ্ঞরা জানান, অভ্যন্তরীণ উৎস থেকে জ্বালানি অনুসন্ধানে জোর দিলে ব্যয়বহুল এলএনজি নির্ভরতা এড়ানো যেতো।

বর্তমানে দেশে উৎপাদিত বিদ্যুতের ৬২ শতাংশই গ্যাসভিত্তিক। তাই গ্যাসের দাম বাড়লে বাড়বে বিদ্যুতের উৎপাদন ব্যয়ও। আবার জ্বালানি খরচ বাড়ায় শিল্প বিনিয়োগেও নেতিবাচক প্রভাবের আশঙ্কা করছে বিশেষজ্ঞরা।

তারা বলছেন, আবারো গ্যাসের দাম বাড়ানোর উদ্যোগের জন্য সরকারের ভুল নীতিই দায়ী।

জ্বালানি বিশেষজ্ঞ ড. এম শামসুল আলম বলেন, সাগরের গ্যাস উত্তোলনে অগ্রগতি নেই। স্থলের কোন গ্যাস ফিল্ড এক্সটেনসিভ ওয়েতে অনুসন্ধানে গেলাম না আমরা। গ্যাসের এবং জ্বালানির সংকট তীব্র করে আমরা এলএনজির চাহিদা বাড়িয়ে আমরা দাম বৃদ্ধিকে অবশ্যম্ভাবী করলাম।

তবে জ্বালানি ব্যয় বাড়লেও উৎপাদন খাতে সার্বিকভাবে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে না বলে মনে করছেন প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ।

তিনি বলেন, ইন্ডাস্ট্রির মাত্র নয় শতাংশ হলো জ্বালানি খরচ। এই নয় ভাগ যদি না দেয় তাহলে বাকি নব্বই ভাগও কিন্তু তার আসবে না। সেটা তো কেউ চিন্তা করে না। তারা চব্বিশ ঘন্টা গ্যাস পাবে, সেই কস্ট অব অপরচুনিটি তৈরি হবে, মার্কেট আরও বড় হবে।

বিশ্লেষকরা বলছেন, দাম বাড়ানোর সরকারি প্রস্তাবের বিপরীতে গ্রাহকদের জন্য গ্যাসের দাম সহনীয় পর্যায়ে রাখাই হবে কমিশনের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ।

এদিকে এপ্রিল থেকে উচ্চমূল্যের এলএনজি আমদানির কারণে গ্যাসের দাম বাড়ানোর বিকল্প নেই বলে মনে করছে জ্বালানি বিভাগ।