সকল শিরোনাম

সেবা খাতে ঘুষ-দুর্নীতি বন্ধ হবে কবে? কেন সাংবাদিক নির্যাতন? সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যুর সর্বোচ্চ সাজা ৫ বছরের জেল রূপগঞ্জে গাজা ও ইয়াবাসহ শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার আসামের তালিকা নিয়ে বাংলাদেশের দুশ্চিন্তার কোনো কারণ নেই: ভারতীয় হাইকমিশনার প্রধানমন্ত্রী বললে পদত্যাগ করব : নৌমন্ত্রী শিশুরা আমাদের চোখ-কান খুলে দিয়েছে : মনিরুল শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে নিলেন প্রধানমন্ত্রী তারকারা রাস্তায় পুলিশের নামে মামলা দিতে সার্জেটকে বাধ্য করলো শিক্ষার্থীরা আন্দোলনও থামুক; সড়কও নিরাপদ হউক দু:স্থদের মাঝে বিসিএস পুলিশ পরিবারের ঈদ বস্ত্র বিতরণ ৬ কারণে বিশ্বকাপ জিতবে ব্রাজিল সবার জন্য স্বাস্থ্য প্রধানমন্ত্রীর কানাডা সফর ৬ জুন  দ্রব্যমূল্য বাড়ার মাস কী রমজান! সবকিছু স্বপ্নের মতো মনে হচ্ছে লিখিত স্থগিতাদেশ পেলে গাজীপুর সিটি নির্বাচনের জন্য আপিল করা হবে : অ্যাটর্নি জেনারেল সৌহার্দ্যপূর্ণ আন্তঃবাহিনী সম্পর্ক বজায় রাখার আহবান আইজিপির গাজীপুর সিটি করপোরেশনের নির্বাচন ২৬ জুন বিজ্ঞানমনস্ক জ্ঞানভিত্তিক সমাজ বিনির্মানে শিক্ষকদের ভূমিকা শীর্ষক কর্মশালা নির্বাচনী মাঠে একঝাঁক তরুণ মনোনয়নপ্রত্যাশী দলের নয়, কাজের লোককে ভোট দিন: ওবায়দুল কাদের খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা আগের চেয়েও উদ্বেগজনক নির্বাচনী প্রচারণায় ঘুম নেই ঢাকা দক্ষিনের প্রার্থীদের


এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

কেন সাংবাদিক নির্যাতন? সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যুর সর্বোচ্চ সাজা ৫ বছরের জেল রূপগঞ্জে গাজা ও ইয়াবাসহ শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার আন্দোলনও থামুক; সড়কও নিরাপদ হউক ৬ কারণে বিশ্বকাপ জিতবে ব্রাজিল বাপ্পী-মিমের প্রেম অনুরাগ প্রধানমন্ত্রীর কানাডা সফর ৬ জুন হাসান ইন্তিসার এসএসসিতে জিপিএ-৫ পেয়েছে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের নির্বাচন ২৬ জুন বিজ্ঞানমনস্ক জ্ঞানভিত্তিক সমাজ বিনির্মানে শিক্ষকদের ভূমিকা শীর্ষক কর্মশালা নির্বাচনী মাঠে একঝাঁক তরুণ মনোনয়নপ্রত্যাশী খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা আগের চেয়েও উদ্বেগজনক নির্বাচনী প্রচারণায় ঘুম নেই ঢাকা দক্ষিনের প্রার্থীদের ৥ সড়ক দুর্ঘটনা : মায়া কান্নায় কি লাভ? ডেমরায় ট্রাফিকের ঝটিকা অভিযান ও অপরূত কিশোরী উদ্ধার

অযত্ন অবহেলায় অরক্ষিত ডেমরার শহীদ মিনার

ছবি স্লাইড, পাঁচমিশালি, সকল শিরোনাম, সর্বশেষ সংবাদ | ৬ ফাল্গুন ১৪২৪ | Sunday, February 18, 2018

---নিউজ-বাংলাদেশ,ডেমরা: অযত্ন অবহেলায় প্রায় সারা বছরই অরক্ষিত অবস্থায় থাকে ডেমরার চৌরাস্তায়  শ্রমিকবৃন্দ কর্তৃক নির্মীত শহীদ মিনার। তাছাড়া শহীদদের স্মরণে নির্মিত এ শহীদ মিনারটি ঠিকমতো রক্ষণাবেক্ষণ না হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ডেমরার ভাষা সৈনিকেরাসহ সাধারণ মানুষ। পাশাপাশি  শহীদ মিনানের যথাযথ মর্যাদা, পবিত্রতা ও ভাবগাম্ভীর্য রক্ষার বিষয়টি হানি হচ্ছে বলেও তাদের অভিযোগ। দলীয় নানারকম পোষ্টার-ব্যানারসহ বিভিন্ন কোম্পানির বিজ্ঞাপনের পোষ্টার সাটানো থাকে ওই শহীদ মিনারে। তবে সারাবছর ঐতিহ্যবাহী এ শহীদ মিনার বেহাল দশায় থাকলেও ২১ ফেব্রুয়ারিতে ৫২ সালের ভাষা আন্দোলনে নিহত শহীদদের স্মরণে ফুল দেওয়ার উদ্দেশ্যে কিছুটা পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করা হয় বা রাখা হয়। তবে কিছুদিন পর থেকেই আবার বেহাল অবস্থা করা শহীদ মিনারের। এ বিষয়ে প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট মহলের কাছে ডেমরার মুক্তিযোদ্ধা, ভাষাসৈনিক ও সচেতন মহলের একটিই দাবী তারা যেন শহীদ মিনারের মর্যাদা ও পবিত্রতা রক্ষায় জরুরি পদক্ষেপ গ্রহণ করেন। কারণ ইতোপূর্বে শহীদ মিনারের মর্যাদা রক্ষায় কোন ব্যবস্থাই নেয়নি কর্তৃপক্ষ।

---সরেজমিনে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনে নিহতদের স্মরণে নির্মিত ডেমরার ঐতিহ্যবাহী শহীদ মিনারটি সারাবছরই অরক্ষিত অবস্থায় থাকে। দিনের বেলা অনেকে জুতা-সেন্ডেল পরেই মিনারের বেদিতে ঘোরাফেরা করে। তাছাড়া মূল বেদিতে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে পড়ে থাকে নোংরা ময়লা-আবর্জনা, সিগারেটের প্যাকেটসহ অসংখ্য উচ্ছিষ্ট অংশ। আর ময়লা-আবর্জনায় ভরে থাকে চারপাশ। যাত্রীরা সবসময় জুতা পায়ে শহীদ মিনার বেদিতে যানবাহনের জন্য অপেক্ষা করেন। আর বেষ্টনি ও সতর্কীকরণ বিজ্ঞপ্তি টাঙানো না থাকায় অনেক পথচারী আবার ভূলে রাতে শহীদ মিনারের উপরে প্রস্রাবের জন্য বসে পড়ে। শহীদ মিনারে পুলিশের বিচরন না থাকায়  বেশিরভাগ সময় সন্ধ্যা নামতেই  মিনারের মূল বেদিসহ আশপাশে মাদক বিক্রি শুরু করে  মাদকচোরাকারবারিরা। হরহামেশাই শহীদ মিনারের মূল বেদিতে জুতা-সেন্ডেল নিয়ে  ধূমপান করে মানুষ। তাছাড়া শহীদ মিনারে জুতা নিয়েই ভবঘুরে ঘোরাফেরা বা অবস্থান, মূল বেদিতে মিটিং, মিছিল ও ধর্মঘটসহ নানা কর্মসূচী পালন করা হয়।  অথচ ডেমরার এ শহীদ মিনারে প্রতিবছর ভাষা শহীদদের ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায়  বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনসহ সর্বস্তরের মানুষ।

---এ বিষয়ে আওয়ামীলীগ সাংস্কৃতিক ফোরাম ঢাকা মহানগর দক্ষিনের আহবায়ক মো. মিজানুর রহমান  বলেন, ভাষা আন্দোলন করতে গিয়ে যারা শহীদ হয়েছেন তাদের স্মরণেই এ শহীদ মিনার। যদি এর যথাযথ মর্যাদা রক্ষা না হয় তাহলে এদেশের স্বাধীনতাযুদ্ধে ৩০ লাখ শহীদ ও ভাষা আন্দোলনের শহীদদের অপমান করা হয়। তবে শহীদ মিনার সংলগ্ন চৌরাস্তার বটতলায় দায়িত্ব পালক করেন রামপুরা ট্রাফিক জোনের পুলিশ। এ বছর ভাষা শহীদদের সম্মানার্থে নিজ উদ্যোগে রামপুরা ট্রাফিক জোনের টিআই বিপ্লব ভৌমিক শহীদ মিনারটিকে পরিস্কার ও পরিচ্ছন্ন করে চার পাশে বাঁশের বেষ্টনী দেওয়ার দায়িত্ব নিয়ে কাজ করছেনু যা দ্রুত সম্পন্ন হচ্ছে।

---এ বিষয়ে জানতে চাইলে টিআই বিপ্লব ভৌমিক বলেন, একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধ, ঊনসত্তরের গণআন্দোলনসহ দেশে যত আন্দোলন হয়েছে তার সব আন্দোলনের সূচনা হলো ভাষা আন্দোলন। তবে শহীদদের স্মরণে নির্মিত শহীদ মিনারের আসল মর্যাদাই নতুন প্রজন্মসহ আমরা আজ ভুলতে বসেছি। তাই শহীদ মিনারের রক্ষণাবেক্ষণের পুরো দায়িত্ব আমাদেরকেই নিতে হবে। পাশাপাশি নতুন প্রজেন্মর কাছে শহীদ মিনারের মর্যাদা ও গুরুত্ব তুলে ধরা এবং প্রত্যেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভাষা শহীদদের বিষয়ে  গুরুত্বসহকারে আলোচনা করা উচিত। কারণ শহীদ মিনার হলো ভাষা সৈনিকদের স্মৃতিস্তম্ভ। এটাকে দেখভাল করা সকলের নৈতিক দায়িত্ব। তাই এবছর থেকেই শহীদ মিনারটি রামপুরা ট্রাফিক জোনের উদ্যোগে পরিস্কার করে বেষ্টনি দিয়েছি। সারাবছর যাতে শহীদ মিনার এভাবেই পরিচ্ছন্ন থাকে সে বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করবে ডেমরা থানা পুলিশ ও রামপুরা ট্রাফিক জোন। আর নিজ দায়িত্ববোধ থেকে শহীদ মিনারটি পরিস্কার ও পরিচ্ছন্ন রাখা উচিত বলে মনে করেন টিআই বিপ্লব ভৌমিক।