সকল শিরোনাম

এমপি হাবিবুর রহমান মোল্লার গণসংযোগ একনেকে ১৫টি প্রকল্পের অনুমোদন সিনহাকে আদালতের মাধ্যমে দেশে ফিরিয়ে আনা হবে: আইনমন্ত্রী ‘বর্তমান সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন হবে এটা পাগলেও বিশ্বাস করে না’ রূপগঞ্জে দুই শতাধিক গ্রাজুয়েটকে প্রশিক্ষন ডেমরায় মাদক,সন্ত্রাস, জঙ্গি, ইভটিজিং ও নিরাপদ সড়ক বিষয়ক আলোচনাসভা ২৯ সেপ্টেম্বর কি হবে? সেবা খাতে ঘুষ-দুর্নীতি বন্ধ হবে কবে? কেন সাংবাদিক নির্যাতন? সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যুর সর্বোচ্চ সাজা ৫ বছরের জেল রূপগঞ্জে গাজা ও ইয়াবাসহ শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার আসামের তালিকা নিয়ে বাংলাদেশের দুশ্চিন্তার কোনো কারণ নেই: ভারতীয় হাইকমিশনার প্রধানমন্ত্রী বললে পদত্যাগ করব : নৌমন্ত্রী শিশুরা আমাদের চোখ-কান খুলে দিয়েছে : মনিরুল শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে নিলেন প্রধানমন্ত্রী তারকারা রাস্তায় পুলিশের নামে মামলা দিতে সার্জেটকে বাধ্য করলো শিক্ষার্থীরা আন্দোলনও থামুক; সড়কও নিরাপদ হউক দু:স্থদের মাঝে বিসিএস পুলিশ পরিবারের ঈদ বস্ত্র বিতরণ ৬ কারণে বিশ্বকাপ জিতবে ব্রাজিল সবার জন্য স্বাস্থ্য প্রধানমন্ত্রীর কানাডা সফর ৬ জুন  দ্রব্যমূল্য বাড়ার মাস কী রমজান! সবকিছু স্বপ্নের মতো মনে হচ্ছে লিখিত স্থগিতাদেশ পেলে গাজীপুর সিটি নির্বাচনের জন্য আপিল করা হবে : অ্যাটর্নি জেনারেল


এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

একনেকে ১৫টি প্রকল্পের অনুমোদন ২৯ সেপ্টেম্বর কি হবে? ঈদে বাসের অগ্রিম টিকিট কাল থেকে আসামের তালিকা নিয়ে বাংলাদেশের দুশ্চিন্তার কোনো কারণ নেই: ভারতীয় হাইকমিশনার শিশুরা আমাদের চোখ-কান খুলে দিয়েছে : মনিরুল আন্দোলনও থামুক; সড়কও নিরাপদ হউক প্রধানমন্ত্রীর কানাডা সফর ৬ জুন হাসান ইন্তিসার এসএসসিতে জিপিএ-৫ পেয়েছে লিখিত স্থগিতাদেশ পেলে গাজীপুর সিটি নির্বাচনের জন্য আপিল করা হবে : অ্যাটর্নি জেনারেল সৌহার্দ্যপূর্ণ আন্তঃবাহিনী সম্পর্ক বজায় রাখার আহবান আইজিপির নির্বাচনী মাঠে একঝাঁক তরুণ মনোনয়নপ্রত্যাশী খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা আগের চেয়েও উদ্বেগজনক ৥ সড়ক দুর্ঘটনা : মায়া কান্নায় কি লাভ? এমপি হতে শেষ চেষ্টায় মনোনয়ন প্রত্যাশীরা

মহাপরিকল্পনা নিয়ে মাঠে নামছে আ’লীগ

জাতীয় সংবাদ, সকাল-বিকাল | ২০ পৌষ ১৪২৪ | Wednesday, January 3, 2018

 

---সফিকুল ইসলাম

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত রোববার যশোরে আগামী নির্বাচনে নৌকা মার্কায় ভোট চেয়ে দলের পক্ষে অঘোষিত প্রচারণা শুরু করেছেন। এটি একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে মহাপরিকল্পনার নিয়ে মাঠে নামছে সরকারি দল আওয়ামী লীগ। সেদিক থেকে নির্বাচনী প্রচারণা এ নতুন বছরের প্রথম থেকেই প্রধানমন্ত্রী রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচটি ইমামের নেতৃত্বে মহাপরিকল্পনার প্রস্তুতি পর্ব শুরু হয়েছে। যার অন্যতম অংশ হচ্ছে ব্যাপক জনসংযোগ। আওয়ামী লীগের প্রথম সারির নেতারা এতে একযোগে যোগ দেবেন।

নির্বাচন কমিশন ২০১৮ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে নির্বাচনের ঘোষণা দিয়েছে। সেপ্টেম্বর থেকেই নির্বাচনী প্রচার

কার্যক্রম শুরু হবে। তার আগেই দলকে নির্বাচন উপযোগী করে তুলতে যা যা দরকার তা নেয়া হচ্ছে। গড়ে তোলার প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে এ মহাপরিকল্পনায়। বছরের শুরু থেকেই সারাদেশে সাংগঠনিক সফর শুরু করবেন আওয়ামী লীগের নেতারা। তৃণমূল নেতাকর্মীদের সাথে কথা বলে আগামী নির্বাচনে সম্ভাব্য প্রার্থীদের যাচাই বাছাই করবেন তারা। সম্ভাব্য প্রতিপক্ষ প্রার্থীদের জনপ্রিয়তা জানবেন। সেই সাথে দলের অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্ব-বিরোধ মেটানোর চেষ্টা করবেন। এরই এক পর্যায়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নির্বাচন পরিচালনা কমিটি গঠন করে নির্বাচনী ইশতেহার তৈরি করবে। পাশাপাশি কেন্দ্রভিত্তিক কমিটি গঠন করা হবে। প্রশিক্ষণ দেয়া হবে পোলিং এজেন্টদের। সরকারের উন্নয়নচিত্র সম্পর্কে বিশদ ধারণা ভোটারদের সামনে উপস্থাপনে অন্যতম দিক হিসেবে থাকবে মহাপরিকল্পনাতে। পার্থক্য তুলে ধরা হবে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির শাসনামলে বিভিন্ন খাত ও দিক নিয়ে।

একই সাথে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কয়েকটি জেলা ও উপজেলায় জনসংযোগে যাবেন। নির্বাচনে দলের চূড়ান্ত প্রার্থী বাছাই, নির্বাচনকেন্দ্রিক অন্তর্দ্বন্দ্ব নিরসন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দুর্নীতি মামলার রায়-পরবর্তী পরিস্থিতি মোকাবেলা এবং সরকার বিরোধী সম্ভাব্য আন্দোলন নিয়ে দলের নেতাকর্মীদের প্রস্তুত করে তুলবেন তিনি। একই সাথে শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমেও জনগণের পাশাপাশি তৃণমূল নেতাকর্মীদের সাথে মতবিনিময় করবেন। প্রধানমন্ত্রী দীর্ঘদিন ধরে যেসব জেলা এবং উপজেলায় যাননি, এবার সেসব জায়গায় যাবেন তিনি। তৃণমূল নেতাদের সাথে একান্তে বৈঠকও করবেন। স্থানীয় নেতাদের সুনির্দিষ্ট দিকনির্দেশনা দেবেন। এর আগে জানুয়ারি থেকে কেন্দ্রীয় নেতারা জেলা ও উপজেলায় জনসংযোগ করবেন। থাকছে ধারাবাহিক কর্মসূচি। সভাপতিম-লীর ১৫ সদস্যের নেতৃত্বে কমপক্ষে ১৫টি গ্রুপ তৃণমূল পর্যায়ে জনসংযোগে অংশ নেবে। আন্দোলনের নামে বিএনপি-জামায়াতের জ্বালাও-পোড়াওসহ ধ্বংসাত্মক রাজনীতির বিষয়টিও আলোচনার অংশ হয়ে থাকবে। ইতিমধ্যে আগামী নির্বাচন নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জরিপ করেছেন। এতে ২০০৮ সালের নির্বাচনের চেয়ে বেশি আসনে জয় পাওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে ১৪দলীয় জোটের প্রধান শরিক আওয়ামী লীগে। দলীয় কোন্দল দুশ্চিন্তার প্রধান কারণ হয়ে উঠেছে। মনোনয়ন নিয়ে প্রায় প্রতিটি আসনেই এমপিদের সাথে সংরক্ষিত নারী আসনের এমপি, উপজেলা চেয়ারম্যান ও মেয়রদের বিরোধের চিত্র মুছে ফেলতে হবে কেন্দ্রীয় নেতাদের। প্রয়োজনে অন্তর্দ্বন্দ্বে জড়িত নেতাদের ঢাকায় তলব করা হবে। বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগ রয়েছে প্রধানমন্ত্রীর। দলের নেতাকর্মীদের বিষয়টি নিয়ে সতর্ক থাকার নির্দেশ দিয়েছেন। আগামী ৫ জানুয়ারি দেশজুড়ে গণতন্ত্রের বিজয় দিবস পালন করা হবে। ঢাকা দক্ষিণ মহানগর আওয়ামী লীগ বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে এবং ঢাকা উত্তর মহানগর আওয়ামী লীগ গুলশানে জনসভা করবে।