সকল শিরোনাম

সেবা খাতে ঘুষ-দুর্নীতি বন্ধ হবে কবে? কেন সাংবাদিক নির্যাতন? সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যুর সর্বোচ্চ সাজা ৫ বছরের জেল রূপগঞ্জে গাজা ও ইয়াবাসহ শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার আসামের তালিকা নিয়ে বাংলাদেশের দুশ্চিন্তার কোনো কারণ নেই: ভারতীয় হাইকমিশনার প্রধানমন্ত্রী বললে পদত্যাগ করব : নৌমন্ত্রী শিশুরা আমাদের চোখ-কান খুলে দিয়েছে : মনিরুল শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে নিলেন প্রধানমন্ত্রী তারকারা রাস্তায় পুলিশের নামে মামলা দিতে সার্জেটকে বাধ্য করলো শিক্ষার্থীরা আন্দোলনও থামুক; সড়কও নিরাপদ হউক দু:স্থদের মাঝে বিসিএস পুলিশ পরিবারের ঈদ বস্ত্র বিতরণ ৬ কারণে বিশ্বকাপ জিতবে ব্রাজিল সবার জন্য স্বাস্থ্য প্রধানমন্ত্রীর কানাডা সফর ৬ জুন  দ্রব্যমূল্য বাড়ার মাস কী রমজান! সবকিছু স্বপ্নের মতো মনে হচ্ছে লিখিত স্থগিতাদেশ পেলে গাজীপুর সিটি নির্বাচনের জন্য আপিল করা হবে : অ্যাটর্নি জেনারেল সৌহার্দ্যপূর্ণ আন্তঃবাহিনী সম্পর্ক বজায় রাখার আহবান আইজিপির গাজীপুর সিটি করপোরেশনের নির্বাচন ২৬ জুন বিজ্ঞানমনস্ক জ্ঞানভিত্তিক সমাজ বিনির্মানে শিক্ষকদের ভূমিকা শীর্ষক কর্মশালা নির্বাচনী মাঠে একঝাঁক তরুণ মনোনয়নপ্রত্যাশী দলের নয়, কাজের লোককে ভোট দিন: ওবায়দুল কাদের খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা আগের চেয়েও উদ্বেগজনক নির্বাচনী প্রচারণায় ঘুম নেই ঢাকা দক্ষিনের প্রার্থীদের


এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

কেন সাংবাদিক নির্যাতন? সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যুর সর্বোচ্চ সাজা ৫ বছরের জেল রূপগঞ্জে গাজা ও ইয়াবাসহ শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার আন্দোলনও থামুক; সড়কও নিরাপদ হউক ৬ কারণে বিশ্বকাপ জিতবে ব্রাজিল বাপ্পী-মিমের প্রেম অনুরাগ প্রধানমন্ত্রীর কানাডা সফর ৬ জুন হাসান ইন্তিসার এসএসসিতে জিপিএ-৫ পেয়েছে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের নির্বাচন ২৬ জুন বিজ্ঞানমনস্ক জ্ঞানভিত্তিক সমাজ বিনির্মানে শিক্ষকদের ভূমিকা শীর্ষক কর্মশালা নির্বাচনী মাঠে একঝাঁক তরুণ মনোনয়নপ্রত্যাশী খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা আগের চেয়েও উদ্বেগজনক নির্বাচনী প্রচারণায় ঘুম নেই ঢাকা দক্ষিনের প্রার্থীদের ৥ সড়ক দুর্ঘটনা : মায়া কান্নায় কি লাভ? ডেমরায় ট্রাফিকের ঝটিকা অভিযান ও অপরূত কিশোরী উদ্ধার

‘গাড়ির চাপ দেখলেই মন্ত্রী-এমপিদের ধৈর্য মানে না’

ছবি স্লাইড, জাতীয় সংবাদ, সকল শিরোনাম, সর্বশেষ সংবাদ | ২৪ আষাঢ় ১৪২৪ | Saturday, July 8, 2017

যানজট দূর করতে জনসাধারণের সঙ্গে ভিআইপিদেরও মানসিকতা পরিবর্তনের আহ্বান জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, আমরা মন্ত্রী-এমপি, গাড়ির চাপ দেখলেই ধৈর্য আর মানে না। আমরা তখন উল্টো পথে যাই। ভিআইপিদের এ ব্যাপারে  খেয়াল করতে হবে। আমরা যদি সাধারণ মানুষকে আইন মানতে পরামর্শ দেই তাহলে আমাদের নিজেদের আইন মানা উচিত।

 

আজ বৃহস্পতিবার সংসদে প্রস্তাবিত বাজেটের মঞ্জুরি দাবি ছাঁটাই প্রস্তাবের আলোচনায় তিনি এসব কথা বলেন।

 

যানজট প্রসঙ্গে ঈদের দিন রাতে সড়ক পথে পাহাড় ধসে দুর্গত অঞ্চল রাঙামাটি থেকে ফেরার অভিজ্ঞতা তুলে ধরে ওবায়দুল কাদের বলেন, ঢাকায় ফিরেছি রাত ১২টায়। রাস্তা ফাঁকা.. কাঁচপুরে ৪০ মিনিট জ্যামে আটকা থাকলাম.. কারণ গাড়িগুলো এলোপাতাড়ি রাখা। ওই যে ঢাকায় ঢুকতে হবে, কে আগে যাবে প্রতিযোগিতা, কারও সহ্য হয় না। যাত্রীরাও চালককে চাপ দেয়, ট্রিপ বেশি দেওয়ার জন্য চালকরাও…। মন-মানসিকতা পরিবর্তন না হলে যানজট দূর হবে না।

 

এর আগে ছাঁটাই প্রস্তাবের আলোচনায় জাতীয় পার্টির নুরুল ইসলাম মিলন বলেন, রাস্তা করার সঙ্গে সঙ্গে নিরাপদে মানুষের চলাচল নিশ্চিত করতে হবে; যানজট নিরসনে বিশেষ দৃষ্টি দিতে হবে। মহাসড়কে যান চলাচলে সর্বোচ্চ গতিবেগ ৮০ কিলোমিটারে বেঁধে দেওয়ার সুপারিশ করে তিনি বলেন, অতিরিক্ত মুনাফার লোভে বেপরোয়া যান চালায় মালিক ও চালকরা। লক্ষ্য করছি মালিক সমিতির সভাপতি কোনো কোনো মন্ত্রী। শ্রমিক সমিতির সভাপতিও মন্ত্রী, কীভাবে হবে?

 

স্বতন্ত্র সদস্য রুস্তম আলী ফরাজী বলেন, সুযোগ্য মন্ত্রী এই দপ্তরের সাথে আছে। সড়ক নির্মাণের পরে বিধ্বস্ত হয়ে যায় তাড়াতাড়ি। এ দিকে খেয়াল রাখতে হবে। কিলোমিটারে ২৫ লাখ থেকে এক কোটি টাকা খরচ হয়। এ ব্যাপারে ইঞ্জিনিয়ারদের যদি নির্দেশ দেন ভালো হয়।

 

জাতীয় পার্টির ফখরুল ইমাম বলেন, কথা বলতে শিখতে মানুষের লাগে দুই বছর। আর কি বলতে হবে সেটা শিখতে সারা জীবন। যখন পদ্মা সেতুর খরচ ৮ থেকে ২৮ হাজার হয় তখন মনে প্রশ্ন ওঠে।

 

এসব কথার জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, সমালোচকরা আমার বড় বন্ধু যদি গঠনমূলক হয়। চাটুকর মোসায়েবরা আমার বড় শত্রু। তারা বলে সব ঠিক আছে। আসলে ‘আই অ্যাম নট অলওয়েজ রাইট’, ভুল হবেই; ভুল সংশোধন করতে আমরা পারি। বাজেটের পর বিএনপি প্রেস ব্রিফিং করে। মনে হয় সরকার উচ্ছেদ করবে। বাজেট নিয়ে কত কথাই হলো। কিছু কিছু জিনিস রিভাইজ করে প্রধানমন্ত্রী সংশোধন করে দিয়েছেন। এখন বাজেট নিয়ে আনন্দ।

 

২০০৮ সালে সড়কে এক হাজার কোটি টাকা উন্নয়ন বাজেট বেড়ে এখন ১৭ হাজার কোটি টাকা হওয়ার কথা তুলে ধরে মন্ত্রী বলেন, কিছু কিছু অনিয়ম আছে, অস্বীকার করার উপায় নেই।