সকল শিরোনাম

যানজট : গতি নেই; আছে দুর্গতি! ‘ঈদ চাঁদাবাজি’ বন্ধ হউক চালের দাম নিয়ন্ত্রণে আসছে না কেন? ক্ষমতাওয়ালাদের পাহাড় : আর লাশগুলো আমাদের! প্রিয়াঙ্কার প্রেমে পড়েছেন ‘দ্য রক’ সবুজ খেলে শরীরে যা বদলে যাবে! ব্যাংকিং খাতে অর্থমন্ত্রীর ‘পাপ কর’! ভোটের দিতে গিয়ে অর্থমন্ত্রী ভ্যাটের বাজেট দিয়ে ফেলেছেন : ইশতিয়াক রেজা হেফাজত এখন ‘গলার কাটা’ আ.লীগের, ভেতরে-বাইরে সমালোচনা বাড়ছে! শূকরের মাংসে ভ্যাট তুলে দিলেন অর্থমন্ত্রী: মানুষকে বোকা বানালেন বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে বরাদ্ধ বৃদ্ধি ভোক্তাদের সঙ্গে প্রহসন : ড. শামসুল লংগদুর ঘটনায় ৪০০ জনকে আসামি করে মামলা বাজেট : সরকার বস্ত্রশিল্পের জন্য ভাবুক ধর্ষকদের সাথে ওদের শাস্তিও যেন হয়? রাজধানীর তৃণমূল গোছাচ্ছে আ.লীগ প্রকল্পে প্রকল্পে সংঘর্ষ! বশ্বকবির ১৫৬ তম জন্মবার্ষিকী আজ ব্যাংকে জমে থাকা ৬১৪ কোটি টাকার লভ্যাংশ উধাও কিভাবে রাজনৈতিক নবজাতক থেকে ফ্রান্সের সর্বকনিষ্ঠ প্রেসিডেন্ট হলেন ম্যাক্রোঁ ফ্রান্সের নতুন প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁ বেওয়ারিশ পরিচয়ে জঙ্গি মারজান ও সাদ্দামের দাফন বজ্রপাতে প্রাণহানি ক্রমেই বাড়ছে আজমপুর ফুটওভার ব্রিজে শ্রমিকদের ভিড় বনশ্রীতে ভাঙা সড়কে জলাবদ্ধতা : দুর্ভোগ মৌসুমি ফলে ভয়াবহ ফরমালিন


এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

যানজট : গতি নেই; আছে দুর্গতি! চালের দাম নিয়ন্ত্রণে আসছে না কেন? ক্ষমতাওয়ালাদের পাহাড় : আর লাশগুলো আমাদের! প্রিয়াঙ্কার প্রেমে পড়েছেন ‘দ্য রক’ সবুজ খেলে শরীরে যা বদলে যাবে! হেফাজত এখন ‘গলার কাটা’ আ.লীগের, ভেতরে-বাইরে সমালোচনা বাড়ছে! শূকরের মাংসে ভ্যাট তুলে দিলেন অর্থমন্ত্রী: মানুষকে বোকা বানালেন বাজেট : সরকার বস্ত্রশিল্পের জন্য ভাবুক রাজধানীর তৃণমূল গোছাচ্ছে আ.লীগ প্রকল্পে প্রকল্পে সংঘর্ষ! বশ্বকবির ১৫৬ তম জন্মবার্ষিকী আজ ব্যাংকে জমে থাকা ৬১৪ কোটি টাকার লভ্যাংশ উধাও কিভাবে রাজনৈতিক নবজাতক থেকে ফ্রান্সের সর্বকনিষ্ঠ প্রেসিডেন্ট হলেন ম্যাক্রোঁ ফ্রান্সের নতুন প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁ বজ্রপাতে প্রাণহানি ক্রমেই বাড়ছে

রাজধানীর তৃণমূল গোছাচ্ছে আ.লীগ

ছবি স্লাইড, শীর্ষ সংবাদ, সকল শিরোনাম, সর্বশেষ সংবাদ | ২৫ বৈশাখ ১৪২৪ | Monday, May 8, 2017

---নিউজ-বাংলাদেশ, ঢাকা : রাজধানীতে প্রায় দেড় দশকের বেশি সময় ধরে অগোছাল সংগঠনকে গোছানোর উদ্যোগ নিয়েছে আওয়ামী লীগ। অবিশ্বাস্য হলেও সত্য, আন্দোলন-সংগ্রামে রাজপথের ভ্যানগার্ড বলে পরিচিত ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের থানা ও ওয়ার্ড পর্যায়ে পূর্ণাঙ্গ কমিটি ছিল না বললেই চলে। সর্বশেষ ২০০৩ সালে হাতেগোনা কয়েকটি ওয়ার্ডে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের মধ্য দিয়ে থেমে যায় সাংগঠনিক তৎপরতা। তারপর থেকেই ঢাকা শহরের প্রায় প্রতিটি থানা ও ওয়ার্ডে পাল্টাপাল্টি স্বঘোষিত কমিটির সংস্কৃতি চালু হয় আওয়ামী লীগে। এমন পরিস্থিতিতে এবারই প্রথমবারের মতো রাজধানীর সবকয়টি থানা ও ওয়ার্ডে সংগঠনকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে চলতি মাসের মধ্যেই পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণার কাজ চলছে।

মহানগর নেতাদের সঙ্গে আলাপকালে জানা গেছে, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ উত্তর ও দক্ষিণের কার্যনির্বাহী কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এপ্রিলের ৩০ তারিখের মধ্যে রাজধানীর ৪৯টি সাংগঠনিক থানা, ১০৩টি ওয়ার্ড ও ১৭টি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের জন্য সংশ্লিষ্ট ইউনিটের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের কাছে চিঠি পাঠনো হয়। কমিটি গঠন প্রক্রিয়া বিতর্কমুক্ত রাখার জন্য রাজধানীর প্রতিটি নির্বাচনী এলাকায় একেকটি সাব কমিটি গঠন করা হয়। স্থানীয় দলীয় সংসদ সদস্য, মহানগর আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ নেতা, সংশ্লিষ্ট থানা, ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকদের সমন্বয়ে গঠন করা হয় ওই সাব কমিটি। ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণে ৯টি করে মোট ১৮টি সাব কমিটির নেতাদের গত ফেব্রুয়ারিতে দায়িত্ব দেওয়া হয় বিভিন্ন পদে পদপ্রত্যাশীদের জীবনবৃত্তান্ত যাচাই-বাছাই করে পূর্ণাঙ্গ কমিটি জমা দেওয়ার। কোন্দল এড়াতে সাব কমিটির নেতাদের স্পষ্ট বলে দেওয়া হয়েছে, ‘স্থানীয় দলীয় সংসদ সদ্যদের পরামর্শ গ্রহণপূর্বক কাজ করতে হবে। সংশ্লিষ্ট থানা, ওয়ার্ড ও ইউনিয়নের সভাপতি/সাধারণ সম্পাদকদের সঙ্গে আলোচনা করে কমিটি করতে হবে।’

পদপ্রত্যাশীদের অযোগ্যতা হিসেবে দলীয় প্যাডে লিখিত ওই চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, ‘খুনি, সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, মাদক ব্যবসায়ী ও সকল প্রকার অসামাজিক কার্যে লিপ্ত ব্যক্তিদের কোনো কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত করা যাবে না।’ পাশাপাশি যোগ্যতা হিসেবে ‘শেখ হসিনার নেতৃত্বের প্রতি আস্থাশীল, সৎ, ত্যাগী, পরীক্ষিত, পরিশ্রমী, আদর্শ’ বিষয়গুলোর ওপর গুরুত্ব দিতে বলা হয়। শুধু তাই নয়, পদপ্রত্যাশীদের নিজ নিজ এলাকার ভোটার হতে হবে বলেও আলাপকালে জানান ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের উপপ্রচার সম্পাদক আজিজুল হক রানা। তিনি বলেন, নির্বাচনের সময় অনেককেই দেখা যায়, ঢাকার বাইরে নিজ নিজ জেলা শহরে চলে যায়। তাই মহানহরের সব স্তরের কমিটিতে প্রবেশের ক্ষেত্রে স্ব স্ব এলাকার জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা গেছে, মহানগর আওয়ামী লীগের রাজনীতি এর আগে অনেকটা ব্যক্তিকেন্দ্রিক ছিল। বিভিন্ন এলাকার স্থানীয় মাতব্বর গোছের ব্যক্তিরা নিজ নিজ থানা-ওয়ার্ড ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নিয়ন্ত্রণ করতেন। এবারই প্রথমবারের মতো রাজধানীর প্রতিটি এলাকায় সরাসরি কমিটি দিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গত বছরের ১০ এপ্রিল দলীয় প্রধানের স্বাক্ষরিত প্যাডে মহানগরের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকদের সঙ্গেই দায়িত্ব পান রাজধানীর থানা, ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকবৃন্দ। মূলত ঢাকা শহরে মহানগর আওয়ামী লীগকে সাংগঠনিকভাবে একটা কাঠামোর মধ্যে নিয়ে আসার জন্যই ওই প্রক্রিয়ায় কমিটি দেওয়া হয়। এখন মহানগরের তৃণমূল পর্যায়ে যে কমিটি গঠনের প্রক্রিয়া চলছে সেখানেও যাতে সমন্বয়হীনতা না থাকে সে জন্য সাব কমিটিগুলো গঠন করে বিভিন্ন নেতাদের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। লক্ষ্য একটাই; আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগকে একটি শক্তিশালী সংগঠন হিসেবে দাঁড় করানো।

কমিটি গঠনের বিষয়ে জানতে চাইলে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ বলেন, ৩০ এপ্রিলের মধ্যে থানা, ওয়ার্ড এবং ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি জমা দেওয়ার জন্য আমরা সাব কমিটিগুলোকে দায়িত্ব দিই। ইতোমধ্যে অনেক ইউনিটের কমিটির তালিকা আমাদের কাছে চলে এসেছে। আরও কিছু ইউনিট বাকি আছে। এ জন্য চলতি মাসের ১৫ তারিখ পর্যন্ত আমরা সময় বাড়িয়েছি।

একই বিষয়ে জানতে চাইলে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ উত্তরের সাধারণ সম্পাদক সাদেক খান বলেন, মহানগর উত্তরের অন্তর্গত প্রায় সব ইউনিটের কমিটির তালিকা চলে এসেছে আমাদের কাছে। আশা করছি চলতি মাসের ২০ তারিখের মধ্যেই সব ইউনিটে পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করতে পারব।

এর আগে গত বছরের ১০ এপ্রিল আওয়ামী লীগের তৎকালীন সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম অবিভক্ত ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগকে উত্তর ও দক্ষিণ দুই ভাগে বিভক্ত করে পৃথক পৃথক কমিটি ঘোষণা করেন। ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি একেএম রহমতুল্লাহ ও সাধারণ সম্পাদক সাদেক খান এবং দক্ষিণের সভাপতি আবুল হাসনাত ও সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ এবং ঢাকা মহানগরীর ৪৯টি থানা ও ১০৩টি ওয়ার্ড কমিটির সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণা করেন। এর প্রায় ৫ মাস পর একই বছরের ১১ সেপ্টেম্বর মহানগর আওয়ামী লীগ উত্তরে ৭৮ ও দক্ষিণে ৭৫ জনের এ কমিটি অনুমোদন করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। উভয় কমিটিতে ৬৯ জন কার্যনির্বাহী সদস্যের সঙ্গে উত্তরে ৯ সদস্যের ও দক্ষিণে ৬ সদস্যের উপদেষ্টা পরিষদও রাখা হয়। এর আগে ২০০৩ সালের ১৮ জুন সম্মেলনের মাধ্যমে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সর্বশেষ কমিটি ঘোষণা করা হয়।