সকল শিরোনাম

.রূপগঞ্জে পিএসসি পরীক্ষায় অনিয়মের অন্ত:নেই স্বপ্ন-সুখের সংসার করা হলোনা রিমুর : ডেমরায় প্ররোচনায় পড়ে গলায় ফাঁস দিয়ে শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা ডেমরায় পঙ্গুদের মাঝে হুইল চেয়ার ও ক্রাচ বিতরণ শেখ হাসিনা বর্তমান বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘস্থায়ী নারী শাসক ধর্মের নামে একটি কুচক্রিমহল শিক্ষিতযুবকদের ভুলপথে নেয়ার ষড়যন্ত্রে মেতে উঠেছে: হাবিবুর রহমান মোল্লা এমপি আল-রাফি হাসপাতালের উদ্যোগে চিকিৎসকদল রোহিঙ্গা ক্যাম্পে শুভ জন্মদিন প্রিয় নেত্রী শেখ হাসিনা -নূরুন্নবী চৌধুরী শাওন চলন্ত বাসে গণধর্ষণ করে হত্যার লোমহর্ষক বর্ণনা: আদালতে স্বীকারোক্তি ইউরোপ থেকে অবৈধ বাংলাদেশিদের ফেরত আনতে চুক্তির খসড়া চূড়ান্ত রোহিঙ্গা গণহত্যা বন্ধে আসিয়ানকে ভূমিকা নেওয়ার আহবান থমকে গেছে বিএনপি ঈদে আসছে রনি’র মিউজিক ভিডিও “কোরবানি” সীতাকুণ্ডে অজ্ঞাত রোগে ৯ জনের মৃত্যু সরকার দেশের পরিবেশ ও মানুষকে ধ্বংসের দিকে ঠেলে দিচ্ছে: রিজভী সরকার অবাধ তথ্য প্রবাহে বিশ্বাস করে : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ উন্নয়নের মহাসড়কে এগিয়ে চলেছ ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রনে বাংলাদেশের বিজ্ঞানীর বিশ্ব অবাক করা আবিষ্কার ‌‘দেশকে অস্থিতিশীল করার চক্রান্ত চলছে’ দেশে আল্লাহর গজব পড়েছে: এরশাদ দুই নগরে নৌকা চাই… বাহ! ভালইতো… ঢাকায় প্রতি ১১ জনের একজন চিকুনগুনিয়ায় আক্রান্ত ‘গাড়ির চাপ দেখলেই মন্ত্রী-এমপিদের ধৈর্য মানে না’ বাংলাদেশকে সমর্থন দেবে থাইল্যান্ড ‘মুসলিমরা ডোনাট খায় না’ গুজবের নেপথ্যে


এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

স্বপ্ন-সুখের সংসার করা হলোনা রিমুর : ডেমরায় প্ররোচনায় পড়ে গলায় ফাঁস দিয়ে শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা ডেমরায় পঙ্গুদের মাঝে হুইল চেয়ার ও ক্রাচ বিতরণ শেখ হাসিনা বর্তমান বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘস্থায়ী নারী শাসক ধর্মের নামে একটি কুচক্রিমহল শিক্ষিতযুবকদের ভুলপথে নেয়ার ষড়যন্ত্রে মেতে উঠেছে: হাবিবুর রহমান মোল্লা এমপি আল-রাফি হাসপাতালের উদ্যোগে চিকিৎসকদল রোহিঙ্গা ক্যাম্পে শুভ জন্মদিন প্রিয় নেত্রী শেখ হাসিনা -নূরুন্নবী চৌধুরী শাওন ইউরোপ থেকে অবৈধ বাংলাদেশিদের ফেরত আনতে চুক্তির খসড়া চূড়ান্ত থমকে গেছে বিএনপি শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ উন্নয়নের মহাসড়কে এগিয়ে চলেছ ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রনে বাংলাদেশের বিজ্ঞানীর বিশ্ব অবাক করা আবিষ্কার দেশে আল্লাহর গজব পড়েছে: এরশাদ দুই নগরে নৌকা চাই… ঢাকায় প্রতি ১১ জনের একজন চিকুনগুনিয়ায় আক্রান্ত ‘গাড়ির চাপ দেখলেই মন্ত্রী-এমপিদের ধৈর্য মানে না’ বাংলাদেশকে সমর্থন দেবে থাইল্যান্ড

আজমপুর ফুটওভার ব্রিজে শ্রমিকদের ভিড়

ছবি স্লাইড, সকল শিরোনাম, সর্বশেষ সংবাদ | ২৫ বৈশাখ ১৪২৪ | Monday, May 8, 2017

---নিউজ-বাংলাদেশ, ঢাকা: রাজধানীর উত্তরার প্রাণকেন্দ্র আজমপুর ব্যস্ততম ওভারব্রিজটি ভোর না হতেই দিনমজুর ও কর্মপ্রত্যাশীদের দখলে চলে যায়। শত শত লোকের ভিড়ে স্কুল-কলেজগামী ও অফিসগামী লোকদের চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। ওভারব্রিজের নিচের দুই পাশের ফুটপাতের ১০০ গজের মধ্যে সাধারণের চলাচল অসম্ভব হওয়ায় বাধ্য হয়ে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের ওপর দিয়েই চলাচল করতে হয়। প্রধান রাস্তার ওপর দিয়ে চলাচল ঝুঁকিপূর্ণ। দীর্ঘদিন ধরে এভাবে চলতে থাকলেও বিকল্প চিন্তা করছে না কেউ। অথচ ব্রিজটির ১০০ গজের মধ্যে আজমপুর সরকারি প্রাইমারি স্কুল মাঠ এবং কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠের প্রশস্ত জায়গা খালি পড়ে থাকে। যেখানে কয়েকশ’ লোক অবস্থান করলেও চলাচলে কোনো প্রভাব পড়বে না। কিন্তু সেখানে না দাঁড়িয়ে শ্রমিকরা ফুটওভার ব্রিজের ওপরে দাঁড়ায়।

উত্তরা ছাড়াও দূর-দূরান্ত থেকে দৈনিক কাজের আশায় ছুটে আসা লোকেরা কাজ পাওয়ার আশায় যেমন এখানে জড়ো হয়। তেমনি দিনমজুরের খোঁজে গাড়ি নিয়ে এলাকাবাসী এখানে ভিড় করেন। ভোর ৬টা থেকে সকাল ১০টা পর্যন্ত জায়গাটি কর্ম বেচাকেনার জায়গা হিসেবে ব্যবহৃত হয়। ফুটওভারব্রিজ পারাপারে সবচেয়ে বেশি সমস্যায় পড়ে বৃদ্ধা, অসুস্থ এবং স্কুল কলেজগামী ছাত্রীরা।
নিকটস্থ আজমপুর প্রাইমারি স্কুল, নওয়াব হাবিবুল্লাহ মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ, রাজউক কলেজ, আইইএস স্কুল অ্যান্ড কলেজ, উত্তরা হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজসহ অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা ওই ফুট ওভারব্রিজ ব্যবহার করেন। তাই বিকল্প জায়গা নির্ধারণই এ সমস্যার একমাত্র সমাধান। শিক্ষার্থীরা দ্রুত এ সমস্যা সমাধানের দাবি জানিয়েছেন।
উত্তরা হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজের ছাত্রী রাফসানা ইসলাম শশী বলেন, প্রতিদিন ওভারব্রিজ পার হয়ে স্কুলে আসতে হয়। কিন্তু ব্রিজের নিচে প্রচুর লোক দাঁড়িয়ে থাকে এবং আমাদের আসার জন্য সাইড দেয় না। বাধ্য হয়ে আমরা প্রধান রাস্তার পাশ দিয়ে ব্রিজে উঠি। এতে আমাদের অনেক সমস্যা হয়।
আইইএস স্কুল অ্যান্ড কলেজের ছাত্রী জুলেখা মারজান বলে, ওই ফুটওভার ব্রিজের নিচের রাস্তা কোনোভাবেই চলাচলের উপযোগী থাকে না। তাই আংকেল সাইড দেন বলতে বলতে আসি। অনেকে শুনেও সাইড দিতে চায় না। ওখানের লোকদের সরিয়ে দেয়ার ব্যবস্থা করলে আমাদের স্কুলে যেতে সুবিধা হয়। স্থানীয় রুচি রেস্তোরাঁর মালিক মোবারক হোসেন বলেন, কাজে আসা লোকদের তাড়ালে তারা কাজ না পেয়ে উপোস থাকবে। তাই তাদের না তাড়িয়ে বিকল্প স্থান নির্ধারণ করে দিলে পথচারী এবং কর্মপ্রত্যাশী উভয়ের সুবিধা হবে।
উত্তরা অ্যাসোসিয়েশনের নিরাপত্তা সম্পাদক রহিম উল হক বলেন সমস্যাটি দীর্ঘদিনের। এলাকার সবাই এ সমস্যা নিয়েই চলছে। তাই জরুরি এর একটি সুষ্ঠু সমাধান দরকার। তিনি বিকল্প স্থান হিসেবে আজমপুর প্রাইমারি স্কুল মাঠ অথবা কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠে শ্রমিকদের দাঁড়ানোর ব্যবস্থা করার পরামর্শ দেন। উত্তরা পূর্ব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবু বকর মিয়া বলেন, তিনি কয়েকদিন অফিসার এবং ফোর্স পাঠিয়ে ফুটপাট খালি করেছেন। কিন্তু পরক্ষণেই আবার কর্মপ্রত্যাশীদের দখলে চলে যায়। তিনি বিকল্প হিসেবে আজমপুর প্রাইমারি স্কুল মাঠ অথবা ঈদগাহ মাঠ ব্যবহারের ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে জানান।