সকল শিরোনাম

বইমেলায় পাঠক প্রিয়তা পেয়েছে ডা. বদরুল আলমের অদম্য রম্য রচনার বই ‘ এক্স ফাইলস’ উপ-সম্পাদকীয় ইসলামের দৃষ্টিতে ভালবাসা অর্থনীতিতে এগুচ্ছে দেশ; সভ্যতায় কেন পিছিয়ে? নাসর ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা পাকিস্তানের শিগগিরই ছাত্রদলের নতুন কমিটি শুধু জিপিও-৫ নয়, সুনাগরিক হওয়াও জরুরি : শিক্ষামন্ত্রী বাংলাদেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ভালো হচ্ছে এবার বাড়ল ডালের দাম ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থানের পাঁচ দশক ৩ জেলায় ২ কিশোরী ও ১ শিশু ধর্ষণের শিকার মিলল সেন আমলের রাজবাড়ি বিভেদ ভুলে ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে যেতে হবে : প্রধানমন্ত্রী যৌবন ধরে রাখবে যেসব খাবার কোনো নির্বাচনেই অংশ নেবে না বিএনপি: মির্জা ফখরুল ফেসবুককে বিদায়ের কারণ জানালেন ন্যান্সি বিশ্বের শীর্ষ ১০০ চিন্তাবিদদের তালিকায় শেখ হাসিনা হাঁস মুরগি মাছে বিষাক্ত পদার্থ সরকারি চাকরিতে প্রতিবন্ধী কোটা বহাল ৫ কোম্পানির পানি পানের উপযোগী নয়: বিএসটিআই বঙ্গবন্ধুর প্রত্যাবর্তন ছিল প্রজাতন্ত্রের দৃঢ় ভিত্তি ভয়ের সংস্কৃতিতে আড়ষ্ট সমাজ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কাছে দেশবাসীর ৩টি চাওয়া দুর্নীতির একি রীতি? নিবার্চন উপলক্ষ্যে র‌্যাবের নিরাপত্তা বলয়ে রূপগঞ্জ ঢাকা-৫ আসন : ডেমরায় আওয়ামী লীগের নির্বাচনী প্রচারণা সভা


এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থানের পাঁচ দশক কবিরাজি হালুয়া খেয়ে মৃত্যু! বঙ্গবন্ধুর প্রত্যাবর্তন ছিল প্রজাতন্ত্রের দৃঢ় ভিত্তি ভয়ের সংস্কৃতিতে আড়ষ্ট সমাজ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কাছে দেশবাসীর ৩টি চাওয়া সুষ্ঠু নির্বাচনে দেশ কি সক্ষম? ২৯ সেপ্টেম্বর কি হবে? পুরুষত্বের পাঠ্যবই : ছাগলের রাজত্ব, ওড়নার শ্রেষ্ঠত্ব ধর্মনিরপেক্ষতা ধর্মহীনতা নয় বিএনপি-জামায়াত, আওয়ামী-হেফাজত? পরিবহন খাত নৈরাজ্যমুক্ত করুন সর্বকালের শ্রেষ্ঠ বাঙালি বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি অবহেলার মুখে অর্থনীতি অবহেলিত অর্থনীতিবিদ নারী, তোমার সঙ্গে আড়ি! সঙ্কটের মুখেও গ্যাস রফতানির সিদ্ধান্ত কেন

ঘোড়ার আগেই গাড়ি?

ঊপ-সম্পাদকীয়, সকল শিরোনাম, সর্বশেষ সংবাদ | ১২ ভাদ্র ১৪২৩ | Saturday, August 27, 2016

 

এ কেমন কথা, কমপক্ষে আড়াই বছর পর জাতীয় গ্রিডে যুক্ত হবে উচ্চমূল্যের তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস (এলএনজি), অথচ এখনই ওই দামের সঙ্গে সমন্বয়ের জন্য স্থানীয় গ্যাসের দাম বাড়ানোর পাঁয়তারা চলছে। মাত্র কয়েক মাস আগে গ্যাসের দাম বাড়ানো হয়েছে। প্রতিবাদ উঠেছিল সেই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে। সেই প্রতিবাদ তো কাজে আসেইনি, উল্টো এখন আবার বিতরণ কোম্পানিগুলোর মাধ্যমে আবাসিকে সাড়ে ছয়শ’ টাকার গ্যাসের দাম বাড়িয়ে ১২শ’ টাকা করার প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। ব্যবসায়িক ও শিল্প খাতের গ্যাসের দামও বাদ যাচ্ছে না। সেখানেও গ্যাসের দাম প্রায় দ্বিগুণ করার কথা বলা হচ্ছে।

এটা কোনো কথা হতে পারে না যে, ২০১৮ সালে যে গ্যাস পাওয়া যাবে, সমন্বয়ের অজুহাতে এখনই সেই দরে গ্যাস কিনতে হবে ভোক্তাদের। সরকার কি রেন্টাল-কুইক রেন্টাল বিদ্যুৎ কেন্দ্রে ভর্তুকি দেয়নি? এখনও ভর্তুকি দিয়ে চলেছে। গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির যে প্রস্তাব করা হচ্ছে, তা বাস্তবায়িত হলে স্বাভাবিক নিয়মেই সব ধরনের ভোক্তার ওপর আর্থিক চাপ পড়বে। বিশেষত স্বল্প ও সীমিত আয়ের সংসার যাদের, তাদের অবস্থা কী হবে তা সহজেই অনুমেয়। বিদ্যুতের খরচ মেটাতেই তো তাদের ত্রাহি অবস্থা; উপরন্তু গ্যাসের পেছনে যদি ১২শ’ টাকা দিতে হয়, তাহলে সংসারটা চলে কীভাবে? বর্তমানে তিতাসের পক্ষ থেকে যে হারে গ্যাসের মূল্য আদায় করা হচ্ছে সেটাই অযৌক্তিক। এবার কি তবে শুরু হবে মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা? সবচেয়ে বড় কথা, এই মুহূর্তে গ্যাসের দাম বাড়লে বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলোর উৎপাদন খরচ বেড়ে যাবে, তখন তো বাধ্য হয়ে বিদ্যুতের দামও বাড়াতে হবে। এ কী ত্রিশঙ্কু অবস্থা জনগণের!

গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির বিষয়টি এতই অযৌক্তিক যে, খোদ সরকারের মধ্যেই রয়েছে এ নিয়ে বিভক্তি। সরকারের কেউ কেউ মূল্যবৃদ্ধির সরাসরি বিপক্ষে, কেউ বা ধাপে ধাপে বাড়ানোর কথা বলছেন। তাছাড়া গণশুনানিতেও গ্রাহকদের যুক্তি খণ্ডাতে পারেনি কর্তৃপক্ষ। বরং জনগণের রুদ্রমূর্তি দেখে শংকিত হয়ে পড়েছে বিইআরসি। ওদিকে ভোক্তা প্রতিনিধি, সাধারণ মানুষ ও ব্যবসায়ী প্রতিনিধিদের জেরার মুখে কোনো কোম্পানিই সন্তোষজনক জবাব দিতে পারেনি। অর্থাৎ একরকম গায়ের জোরেই সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে সরকার।

গ্যাস ও বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধি সরকারের অভ্যাসে পরিণত হয়েছে। বিনিয়োগকারী ও গৃহস্থের অবস্থা বোঝার কোনো নিয়ত নেই তাদের। গ্যাসের অস্বাভাবিক দর বৃদ্ধির প্রস্তাবের পর অনেক শিল্প প্রতিষ্ঠান তাদের ব্যবসা সম্প্রসারণের চিন্তা বাদ দিয়েছে। গ্যাসভিত্তিক শিল্পে (ক্যাপটিভ) গ্যাসের দর বৃদ্ধির প্রশ্নে সরকারের দীর্ঘমেয়াদি নীতিমালা থাকা উচিত। হুটহাট একটা সিদ্ধান্ত নিয়ে নিলাম, তাতে কার কী হয় হোক- এ মনোভাব কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির যে তোড়জোড় চলছে তাতে ক্ষান্ত দিতে হবে। আড়াই বছর পর যে সিদ্ধান্ত নেয়ার কথা, এখনই তা নেয়া হলে সেটাকে ঘোড়ার আগে গাড়ি জুড়ে দেয়াই বলব আমরা।