সর্বশেষ সংবাদ: বিজ্ঞানমনস্ক জ্ঞানভিত্তিক সমাজ বিনির্মানে শিক্ষকদের ভূমিকা শীর্ষক কর্মশালা নির্বাচনী মাঠে একঝাঁক তরুণ মনোনয়নপ্রত্যাশী খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা আগের চেয়েও উদ্বেগজনক নির্বাচনী প্রচারণায় ঘুম নেই ঢাকা দক্ষিনের প্রার্থীদের ৥ সড়ক দুর্ঘটনা : মায়া কান্নায় কি লাভ? ডেমরায় ট্রাফিকের ঝটিকা অভিযান ও অপরূত কিশোরী উদ্ধার সিসি ক্যামেরার আওতায় রামপুরা ট্রাফিক জোন ঢাকা-৫ আসনে বিএনপি-আ’লীগে একাধিক প্রার্থী, সুবিধাজন অবস্থানে জাপা খালেদাকে জেলে রেখে নির্বাচনের কথা ভাবতে পারে না বিএনপি আগামী নির্বাচনে অংশ গ্রহন না করলে বিএনপি অস্থিত্ব সংকটে পড়বে

সকল শিরোনাম

দু:স্থদের মাঝে বিসিএস পুলিশ পরিবারের ঈদ বস্ত্র বিতরণ ৬ কারণে বিশ্বকাপ জিতবে ব্রাজিল সবার জন্য স্বাস্থ্য প্রধানমন্ত্রীর কানাডা সফর ৬ জুন  দ্রব্যমূল্য বাড়ার মাস কী রমজান! সবকিছু স্বপ্নের মতো মনে হচ্ছে লিখিত স্থগিতাদেশ পেলে গাজীপুর সিটি নির্বাচনের জন্য আপিল করা হবে : অ্যাটর্নি জেনারেল সৌহার্দ্যপূর্ণ আন্তঃবাহিনী সম্পর্ক বজায় রাখার আহবান আইজিপির গাজীপুর সিটি করপোরেশনের নির্বাচন ২৬ জুন বিজ্ঞানমনস্ক জ্ঞানভিত্তিক সমাজ বিনির্মানে শিক্ষকদের ভূমিকা শীর্ষক কর্মশালা নির্বাচনী মাঠে একঝাঁক তরুণ মনোনয়নপ্রত্যাশী দলের নয়, কাজের লোককে ভোট দিন: ওবায়দুল কাদের খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা আগের চেয়েও উদ্বেগজনক নির্বাচনী প্রচারণায় ঘুম নেই ঢাকা দক্ষিনের প্রার্থীদের ৥ সড়ক দুর্ঘটনা : মায়া কান্নায় কি লাভ? ডেমরায় ট্রাফিকের ঝটিকা অভিযান ও অপরূত কিশোরী উদ্ধার এমপি হতে শেষ চেষ্টায় মনোনয়ন প্রত্যাশীরা যারাই ক্ষমতায় আসে তারাই ক্ষমতার অপপ্রয়োগ করে: ড. কামাল রাজধানীর জলাবদ্ধতা নিরসনে ৫টি খাল খনন করবে ওয়াসা যৌন হয়রানি প্রতিরোধে খসড়া আইনের প্রস্তাব সিসি ক্যামেরার আওতায় রামপুরা ট্রাফিক জোন ঢাকা-৫ আসনে বিএনপি-আ’লীগে একাধিক প্রার্থী, সুবিধাজন অবস্থানে জাপা ফখরুলের বক্তব্যের ব্যাখ্যা দিলেন রিজভী কালবৈশাখীর কারণে রূপালী ব্যা‍ংকের লিখিত পরীক্ষা বাতিল খালেদাকে জেলে রেখে নির্বাচনের কথা ভাবতে পারে না বিএনপি


গুনাহ করার পরপরই তওবা করা উচিত

ইসলাম ও জীবন, ছবি স্লাইড, সকল শিরোনাম, সর্বশেষ সংবাদ | ২ শ্রাবণ ১৪২৩ | Sunday, July 17, 2016


Image

মোস্তাফা হাবিব আহসান :

মানুষের পক্ষে গুনাহ্ করা অস্বাভাবিক নয়। কারণ ইবলিস শয়তান সর্বদা মানুষকে বিপথে বা খারাপ কাজে উদ্ধুদ্ধ করার জন্য অবিরাম চেষ্টা করে চলেছে। তাই কোন প্রকৃত বিশ্বাসী ব্যক্তি ইবলিসের খপ্পরে পড়ে কোন গুনাহর কাজ করলে সেটা কোন আশ্চর্যজনক বিষয় নয়। সাথে সাথে সেই মুমিন ব্যক্তি যদি মহান আল্লাহ তা’লার কাছে ক্ষমাভিক্ষা বা তওবা করেন, তাহলে মহান আল্লাহ পাক সেই মুমিন ব্যক্তিকে মার্জনা করে দিবেন। কোন প্রকার দাম্ভিকতা বা হটকারিতা করা ঠিক নয়। বার বার শয়তান ইবলিসের চক্রান্তে পড়ে গুনাহর কাজ করাও ঠিক নয়।
এ সর্ম্পকে নবী করিম (সা.) বলেন প্রত্যেক মানুষই কম বেশি গুনাহগার ও অপরাধী। যে ব্যক্তি শয়তান ইবলিসের প্ররোচনায় গুনাহর কাজ করে এবং সেটা বুঝতে পেরে সঙ্গে সঙ্গে আল্লাহ পাকের নিকট যদি অনুতপ্ত মনে তওবা করে ক্ষমা ভিক্ষা চায়, মহান আল্লাহ্ পাক সেই ব্যক্তিকে ক্ষমা করে দিবেন। যেন সেই ব্যক্তি ঐ লোকের মত হয়ে যায়, যার কোন গুনাহ্ নেই (ইবনে মাজাহ ও তিব্রানী)। সূরা মুজ্জামিলের ২য় রুকুতে মহান আল্লাহ পাক বলেছেন হে মানবগণ তোমরা নিজেদের পাপ বা গুনাহর জন্য মহান আল্লাহ্ পাকের কাছে এস্তেগ্ফার (ক্ষমা) প্রার্থনা কর। নিশ্চয় আল্লাহ ক্ষমতাসীল ও দয়ালু। পবিত্র কোরআন শরীফের সূরা কাস-এর ১৭ নম্বর রুকুতে মহান আল্লাহ্ পাক এরশাদ করেছেন, যারা অনুতপ্ত হয়ে খাঁটি দিলে তওবা করবে ও তার প্রতি ঈমান আনবে এবং পুণ্যময় কাজ করবে-আশা করা যায় তারাই সাফল্য লাভ করবে। তিনি আরোও এরশাদ করেছেন, “ওয়া তূবূ ইলাল্লা-হি জামীআন্ আইয়্যূাহাল মুমিনূনা লা আল্লাকুম মুফ্লিহুন।”
অর্থাৎ হে মুমিনরা! তোমরা সকলেই মহান আল্লাহ্ তা’লার দরবারে খাস দিলে তওবা কর, তাহলে আশা করা যায়, তোমরাই সফলতা লাভ করবে। খাঁটি তওবার দ্বারা মানুষ সংশোধন হয়ে থাকে। তওবার দ্বারা মানুষ সংশোধন প্রসঙ্গে মহান আল্লাহ পাক বলেছেন, তোমাদের মধ্যে যদি কোন ব্যক্তি অজ্ঞতা বা মূর্খতাবশতঃ কোন খারাপ কাজ করে বা বিপথে চলে যায়, পরবর্তীতে সে যদি তা বুঝতে পেরে অনুশোচনার মাধ্যমে খাঁটি দিলে মহান আল্লাহ পাকের দরবারে তওবা করে ও নিজে সংশোধন হয়ে যায়, মহান আল্লাহ পাকের পক্ষে তার প্রতি অনুগ্রহ করা অপরিহার্য হয়ে পড়ে-যেহেতু মহান আল্লাহ পাক ক্ষমাশীল ও মানুষের প্রতি অত্যন্ত দয়ালু।
আমরা আমাদের নিত্যদিনের চলার পথে অহরহ আমাদের চলার পথে, কাজে, দৈনন্দিন সামাজিক জীবনে প্রায়শই কথার ব্যাখ্যা দিই, ঘটনার ভিন্নতরো ব্যাখ্যা, কোন মানুষকে ছোট করার জন্য ভিন্নভাবে তার কাজকে উপস্থাপন করি। এগুলো ঠিক নয়। এসব অভ্যাস থেকে আমাদের বের হয়ে আসা উচিত। একইসাথে এসব মিথ্যা বর্ণনা পরিহার করা উচিত।